রিপাবলিকান পার্টির ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নিতে পারছে না মার্কিনীরা।

রিপাবলিকান পার্টির ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নিতে পারছে না মার্কিনীরা।

ট্রাম্প বিরোধী ক্ষোভ-বিক্ষোভে উত্তাল দেশটির বিভিন্ন শহর। তবে পরাজয় কষ্টের হলেও দেশের স্বার্থে সবাইকে এক সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের জয়ে হতাশ, ক্ষুদ্ধ মার্কিনীরা এবার নেমে পড়লো রাজপথে।  বুধবার রাতে নিউ-ইয়র্কের রাস্তায় বিক্ষোভ ফেটে পড়ে হাজারো মানুষ। নয়া প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে শ্লোগানে রাজপথ কাঁপিয়ে তোলে তারা। ফলাফলের পর পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের শোক আর কান্নার দৃশ্য দেখা গেলেও, এমন বিক্ষোভ আগে কখনো দেখেনি যুক্তরাষ্ট্র।

কয়েকটি জায়গায় পতাকা ও ট্রাম্পের কুশপুত্তলিকা পোড়ায় বিক্ষোভকারীরা। কেবল নিউ-ইয়র্ক নয়, বোস্টন, লস অ্যাঞ্জেলেস, আটলান্টা, অস্টিন, টেক্সাস, শিকাগো, ডেনভার, ফিলাডেলফিয়া, অরেগন, সানফ্রান্সিসকো, সিয়াটল ও ওয়াশিংটন।

বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে হোয়াইট হাউজের বাইরে। ট্রাম্পের অভিবাসী ও মুসলিম বিরোধী অবস্থানে উদ্বেগ জানান তারা। সেইসাথে, স্মরণ করিয়ে দেন ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়াও একজন অভিবাসী।

কোথাও কোথাও শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ বিক্ষোভ রুপ নেয় সহিংসতায়। ক্যালিফোর্নিয়ার ওকল্যান্ডে কয়েকটি দোকানে ভাংচুর চালায় বিক্ষুদ্ধরা। এসময় দাঙ্গা পুলিশের সাথে তাদের সংঘর্ষ বাধে। এর মাঝেই নতুন মাত্রা পায় ক্যালিফোর্নিয়ার স্বাধীনতার দাবি ।  ব্রেক্সিট’-এর অনুসরণে ‘ক্যালেক্সিট’-এর দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে আসছে  ‘ইয়েস ক্যালিফোর্নিয়া ইন্ডিপেনডেন্স’ নামের একটি গ্রুপ। যুক্তরাষ্ট্রের অঙ্গরাজ্যগুলোর মধ্যে সবচে বেশি ৫৫টি ইলেক্টোরাল ভোট ক্যালিফোর্নিয়ায়। আর সেখানে জয়ী হয়েছেন হিলারি ক্লিনটন।

তবে বিভেদ ভুলে জাতীয় স্বার্থকে সবার আগে স্থান দেয়ার আহবান জানিয়েছেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

“আমরা না রিপাবলিকান, না ডোমোক্রেট; সবার আগে মার্কিনী। সবার আগে দেশপ্রেমিক। দেশের জন্য যা ভালো হয় সেটাই চাই আমরা। যা গতরাতে ডোনাল্ড ট্রাম্পও তার ভাষণে উল্লেখ করেছেন।”

এটিই নির্বাচনী প্রচার ও গণতন্ত্রের সৌন্দর্য্য উল্লেখ করে তরুণ ডেমোক্রেট নেতা ও সমর্থকদের ভেঙে না পড়ার আহবান জানিয়েছেন বারাক ওবামা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 − ten =

আরও

শরণার্থী পুনর্বাসন নিয়ে কথা বলায় অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলের সাথে ফোনালাপ শেষ না করেই, তড়িঘড়ি ফোন রেখে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ফোনালাপকে সবচেয়ে খারাপ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। বুধবার