সৌদি আরবের শ্রমবাজার উন্মুক্ত হওয়ার পরই হুমড়ি খেয়ে পড়েছে বিদেশ গমেনেচ্ছুরা।

সৌদি আরবের শ্রমবাজার উন্মুক্ত হওয়ার পরই হুমড়ি খেয়ে পড়েছে বিদেশ গমেনেচ্ছুরা।

তাই সরকার নির্ধারিত টাকার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি খরচ করেও যেতে আপত্তি নেই তাদের। আর এই সুযোগে অতিরিক্ত টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এজেন্সিগুলো। তবে বায়রা নেতারা বলছেন, মালয়েশিয়াসহ অন্য দেশের শ্রমবাজার চালু হলে এই খরচ কমে আসবে। আর মন্ত্রনালয় বলছে, অতিরিক্ত টাকা নেয়ার অভিযোগ পেলে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হবে।রাজধানীর ইস্কাটনের প্রবাসী কল্যাণ ভবন। প্রতিদিনই এখানে অভিবাসন ছাড়পত্রের নানা আনুষ্ঠানিকতার জন্য ভিড় করেন বিদেশ যেতে ইচ্ছুক শ্রমিকরা। যাদের অধিকাংশই সৌদি আরবের যাত্রী।

এই ভবনেই বড় করে লেখা রয়েছে সৌদি আরব যেতে সর্বোচ্চ খরচ এক লাখ পয়ষট্টি হাজার টাকা। কিন্তু কতো টাকায় যাচ্ছেন তারা?

খরচের কথা বলতে চান না অধিকাংশই, তাই কৌশলী হতে হয় বাংলাভিশন টিমকে।
ভক্সপপ…গোপন ক্যামেরায়
পাঁচ থেকে সাত লাখ টাকা খরচে যারা সৌদি যাচ্ছেন, তাদের অধিকাংশেরই বেতন ১২ থেকে ১৬ হাজার টাকা। এতো টাকা খরচে কম বেতনে কেন বিদেশ যাচ্ছে এই মানুষগুলো?

অতিরিক্ত টাকা নেয়ার বিষয়ে ক্যামেরার সামনে কথা বলতে চায়ননি কোন এজেন্সির মালিক। তবে বায়রা নেতারা বললেন, একসাথে চাহিদা বেশি হওয়ায় এবং নানা খরচ বাড়ায় এই পরিস্থিতি।

এদিকে, সরকারের নিয়ম না মেনে অতিরিক্ত টাকা নেয়া হলেও কারো বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয়।

সামান্য বেতনে কয়েকগুণ বেশি খরচে এরই মধ্যে যারা সৌদি গিয়েছেন তাদের অনেকরই খরচের টাকা উঠানোই সম্ভব হয়ে না বলে মনে করছেন ভুক্তভোগীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve + twenty =

আরও

শরণার্থী পুনর্বাসন নিয়ে কথা বলায় অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলের সাথে ফোনালাপ শেষ না করেই, তড়িঘড়ি ফোন রেখে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ফোনালাপকে সবচেয়ে খারাপ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। বুধবার