কলম্বো টেস্টে বাংলাদেশের পথের কাটা হয়ে আছে শ্রীলংকার শেষ দুই ব্যাটসম্যান

কলম্বো টেস্টে বাংলাদেশের পথের কাটা হয়ে আছে শ্রীলংকার শেষ দুই ব্যাটসম্যান

কলম্বো টেস্টে বাংলাদেশের পথের কাটা হয়ে আছে শ্রীলংকার শেষ দুই ব্যাটসম্যান। দ্বিতীয় ইনিংসে লংকার আট উইকেট তুলে নিয়ে শততম টেস্ট রাঙিয়ে তোলার অপেক্ষায় টাইগাররা। চতুর্থ দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে লংকানদের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ২৬৮। ১২৯ রানের ঘাটতি মিটিয়ে স্বাগতিকদের লিড এখন ১৩৯ রানের। জয়ের সম্ভবনা উজ্জ্বল করতে শেষ দিনের শুরুতেই লংকানদের দ্রুত অল আউট করা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

তৃতীয় দিনে ব্যাট হাতে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন সাকিব। চতুর্থ দিনে বল হাতেও নেতৃত্বে সাকিব, তাকে ভালই সাপোর্ট দিয়েছেন কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ। তার আগে দুই লংকান ওপেনার ৫৭ রান তুলে ভালই এগোচ্ছিলেন। চতুর্থ দিনের শুরুতে উপুল থারাঙ্গার উইকেট নিয়ে দলকে গুরুত্বপূর্ণ ব্রেক থ্রু এনে দেন মেহেদি হাসান মিরাজ। যদিও প্রথম সেশনে সাফল্য ওই একটিই।

উইকেটে জমে গেলেন দিমুথ করুনারত্নে ও কুশল মেন্ডিস। দ্বিতীয় উইকেটে উঠলো ৮৬। ১২৯ রানের ঘাটতি মিটিয়ে লিড স্বাগতিকদের। এবার কাটার মাস্টার মুস্তাফিজের আঘাত। তার স্লোয়ারে ভাঙলো লংকান প্রতিরোধ। ফিরলেন মেন্ডিস। উইকেটের স্বাদ পেয়ে শিকারের নেশায় মত্ত টাইগাররা। আবারো দ্য ফিজের আঘাত। এবার আরো বড় শিকার। প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান দিনেশ চান্দিমালের উইকেট জমা পড়লো টাইগার অধিনায়ক মুশফিকের গ্লাভসে। এরপর মুস্তাফিজ-মুশফিকের জুগলবন্দীতে সাঁজঘরে ফিরেছেন ধনঞ্জয় ডি সিলভাও।

জ্বলে ওঠার অপেক্ষায় ছিলেন সাকিব। মুস্তাফিজের অনুপ্রেরণায় সাকিব নিলেন আসেলা গুনারত্নে ও নিরোশান দিকভেলার উইকেট। ১ উইকেটে ১৪৩ থেকে ১৯০ রানে শ্রীলংকার ছয় উইকেটের পতন।

একপ্রান্তে করুনারত্নের একার লড়াই। ক্লাসিক টেস্ট ইনিংসের উদাহরণ দেখিয়ে পেয়েছেন ক্যারিয়ারের পঞ্চম টেস্ট সেঞ্চুরি। তবে তার ১২৬ রানের ইনিংসের পরও ম্যাচের লাগাম ছিলো বাংলাদেশের হাতে। সাকিবের তৃতীয় শিকার হয়ে বিদায় নেন করুনারত্নে।

এরপর বাংলাদেশের বোলারদের বিপক্ষে লংকান সিংহের লেজের লড়াই। তাইজুল অধিনায়ক হেরাথকে ফেরালেও বাধা হয়ে দাড়িয়ে গেছেন দিলরুয়ান পেরেরা ও সুরঙ্গ লাকমাল। টেস্ট টেম্পারমেন্টের অনপুম প্রর্দশনীতে বাংলাদেশকে হতাশায় ডুবিয়ে ২৬ রান তুলতেই পেরেরা বল খেলেছেন ১২৬টি। নবম উইকেটে দুজনের অবিচ্ছিন্ন ৩০ রান, বাংলাদেশের শংকা বাড়িয়ে তুলছে।

টেস্টে শেষ দিনের উইকেট বোলারদের দিকেই সাহায্যের হাত বাড়ায় বেশি। তাই স্বাগতিকদের দ্রুত অলআউট করতে না পারলে শততম টেস্ট রাঙ্গিয়ে তোলা কঠিন হতে পারে টাইগারদের জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 + 9 =

আরও

চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনা: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩

চুয়াডাঙ্গার দামুরহুদায় ট্রাক চাপায় নিহত হয়েছে দিনমজুর ১৩