ভ্যাকসিন পাবেন যেভাবে

অস্ট্রেলিয়ার করোনা ভ্যাক্সিন আটকে দিল ইতালি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করার মধ্য দিয়ে বুধবার শুরু হচ্ছে করোনার টিকার অনলাইন রেজিস্ট্রেশন। বৃহস্পতিবার থেকে ঢাকায় ও ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশব্যাপী ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু হবে।

এরই মধ্যে উপহার আর ক্রয়সহ দেশে পৌঁছেছে ৭০ লাখ ডোজ করোনা টিকা। ক্রয় করা বাকি আড়াই কোটি ডোজও সেরাম থেকে পর্যায়ক্রমে পেয়ে যাবে বাংলাদেশ। দেশের বিপুল মানুষকে করোনার ভ্যাকসিন ব্যবস্থাপনাও প্রস্তুত। করোনার টিকাদান ব্যবস্থাপনায় একটি ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সুরক্ষা সফটওয়্যার তৈরি করা হয়েছে। টিকা পেতে সবাইকে অবশ্যই এই সিস্টেমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

টিকা পেতে www.surokkha.gov.bd ওয়েব পোর্টালে জাতীয় পরিচয়পত্র, জন্মতারিখ আর মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিবন্ধন করে টিকা কার্ড সংগ্রহ করতে হবে। নিবন্ধনের পর ফিরতি মেসেজে টিকা পাওয়ার কেন্দ্র ও সময় জানিয়ে দেয়া হবে। প্রথম ডোজের নির্দিষ্ট সময় পর দ্বিতীয় ডোজও একই কেন্দ্র থেকে নিতে হবে। ১৮ বছরের উপরের সবাই রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

ফ্রন্টলাইনারসহ ১৭ ক্যাটাগরিতে নানা শ্রেণী পেশার মানুষ করোনা টিকার জন্য অগ্রাধিকার পাবেন। টিকা প্রাপ্তিতে বয়োজ্যেষ্ঠদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে। শিশু আর গর্ভবতীদের টিকা আপাতত দেয়া হবে না। করোনা আক্রান্ত বা আক্রান্ত হওয়ার চার সপ্তাহের মধ্যে টিকা নেয়া যাবে না। এছাড়া গরুতর অসুস্থ ছাড়া দীর্ঘমেয়াদী রোগে আক্রান্তরা টিকা নিতে পারবেন।

টিকা নেয়া শেষ হলে টিকা প্রাপ্তির সনদও অনলাইন থেকে সংগ্রহ করতে হবে। ওয়েব পোর্টালের পাশাপাশি সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমেও নিবন্ধন করা যাবে। ২৭ জানুয়ারি থেকে নিবন্ধন শুরু হবে। টিকা দান শুরু হবে ২৮ তারিখ রাজধানীর ৫টি হাসপাতাল থেকে। দেশব্যাপী শুরু হবে ৮ ফেব্রুয়ারি। যাদের স্মার্ট ফোন নেই তারা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে গিয়ে নিবন্ধন করতে পারবেন।

You may also like

করোনায় ৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৬১৯ জন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও সাত জন