বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া ভোট সুষ্ঠু হয়েছে : ইসি সচিব

নির্বাচন কমিশনের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর বলেছেন, কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া সুষ্ঠু হয়েছে দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচন। স্থানবিশেষে ৭০ থেকে ৭৫ শতাংশ ভোট পড়েছে বলেও জানান তিনি।

শনিবার বিকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে ইসি সচিব এই মন্তব্য করেন। টানটান উত্তেজনা, বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আর ভোট বর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে দ্বিতীয় ধাপের ৬০ পৌরসভার ভোটগ্রহণ। চারটি পৌরসভায় ভোট বর্জন করেন বিএনপির  মেয়র পদপ্রার্থীরা। একটিতে ভোট বর্জন করেছেন স্বতন্ত্র মেয়র পদপ্রার্থী। কাউন্সিলর বেশ কয়েকজন প্রার্থীও ভোট বর্জন করেন।

ইসি সচিব মো. আলমগীর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার আগেই, নিজের কার্যালয়ে ভোট নিয়ে নিজের মতামত লিখিতভাবে তুলে ধরেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। তিনি বলেন, ‘আজ শনিবার আমি সাভার পৌরসভার তিনটি ভোটকেন্দ্রের ১৮টি বুথ পরিদর্শন করি। দুপুর ১টা পর্যন্ত ওইসব ভোটকেন্দ্রে সাত হাজার ৩১১ জন ভোটারের মধ্যে এক হাজার ২৩২ জন ভোট প্রদান করেছেন। তিনটি বুথে আমি তিনজন বিরোধীদলীয় প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট দেখতে পাই। কিন্তু অন্য কোথাও এজেন্ট ছিলেন না। এছাড়া, সাভার পৌর এলাকায় আমি বিরোধীদলীয় প্রার্থীর কোনো পোস্টার দেখতে পাইনি। এমতাবস্থায়, এই নির্বাচনকে অংশগ্রহণমূলক বলা যায় না। যেকোনো নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক না হলে তা সিদ্ধ হয় না।’

মাহবুব তালুকদারের বক্তব্যের ব্যাপারে জানতে চাইলে ইসি সচিব মো. আলমগীর বলেন, “কোনো দল যদি নির্বাচনে পোলিং এজেন্ট না দেয় তাহলে নির্বাচন কমিশন কী করতে পারে? এখানে কমিশনের কিছু করার নেই।”

শনিবার দ্বিতীয় দফায় দেশের ৬০টি পৌরসভায় ভোট নেয়া হয়।  এর আগে প্রথম ধাপে পাঁচটি রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করেছিল। এ ধাপে আটটি রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র মিলিয়ে মোট মেয়র পদপ্রার্থী ২২১ জন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে দুই হাজার ৩৩২ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদপ্রার্থীর সংখ্যা ৭২৪ জন।

You may also like

ধর্ষণ- মামলাতেই সামলে উঠে ধর্ষক!

নাসরীন গীতি ● হাইকোর্টে পুলিশের পক্ষ থেকে দাখিলকৃত