ঝুঁকিপূর্ণ আর কষ্টকর হয়ে পড়েছে রেল ভ্রমণ

সঠিক রক্ষণাবেক্ষণের অভাব আর মেয়াদ উত্তীর্ণ কোচের কারণে এখন অনেকটাই ঝুঁকিপূর্ণ আর কষ্টকর হয়ে পড়েছে রেল ভ্রমণ। জামালপুরে নিয়মিত রেললাইনের সংস্কার না হওয়া, পর্যাপ্ত পাথর না থাকায় হরহামেশাই ঘটছে ট্রেন লাইনচ্যুতির ঘটনা। সেই সাথে অজ্ঞান ও মলম পার্টির দৌরাত্ম্যে রেলযাত্রীরা অতিষ্ঠ। বাসের অতিরিক্ত ভাড়া ও ভালো মানের বাস সার্ভিস না থাকায় অনেকেরই পছন্দ রেলপথ। নিরাপদ এবং আরামদায়ক হিসেবে জামালপুর থেকে ঢাকা যাতায়াতকারীদেরও স্বাচ্ছন্দ্যের অন্যতম বাহন ট্রেন। কিন্তু ঢাকা-জামালপুর-তারাকান্দি ও ঢাকা-জামালপুর দেওয়ানগঞ্জ রুটে বেশ কয়েকটি পুরোনো ব্রীজ ও কালভার্ট থাকায় দুর্ঘটনার শংকা নিয়েই চলতে হয় যাত্রীদের।

রেলপথ নিয়মিত সংস্কার না হওয়ায় বিভিন্ন জায়গায় ভাঙ্গা স্লিপার, ফিসপ্লেট ও লাইনে পর্যাপ্ত পাথর না থাকায় মাঝে মধ্যেই ঢাকা-জামালপুর রেলরুটে লাইনচ্যুত হয় ট্রেন। এছাড়া, প্রায়ই মাঝপথে বিকল হয়ে যায় এই রুটে চলাচলকারী আন্ত:নগর ট্রেনগুলোর ইঞ্জিন। রাতের আধারে ফাঁকা জায়গায় ঘন্টার পর ঘন্টা ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়ে থাকায় যাত্রীদের পোহাতে হয় দুর্ভোগ। যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ না থাকায় জামালপুর থেকে ঢাকা পৌছাতে চারঘন্টার পরিবর্তে সময় লাগছে ৫-৬ ঘন্টা। এছাড়াও এই রেলরুটে অজ্ঞান ও মলম পার্টির কবলে পড়ে প্রাণ হারান অনেকেই। তবে জামালপুরের ঝুঁকিপূর্ণ রেলপথ ব্রিজ, কালভার্টের বিষয়ে ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি হননি জামালপুর রেলওয়ের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী মো: কামরুজ্জামান খান।

 

You may also like

১৭ জুলাই, বুধবার ২০১৯

বেলা ১২:০৫ : বাংলা সিনেমা বিকেল ৫:২০ :