ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল, ৭ ফুট জলোচ্ছ্বাসের শংকা

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে উপকূলীয় ৯ জেলায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। জেলাগুলো হলো-বরগুনা, ভোলা পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরায় এবং চট্টগ্রামে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ও কক্সবাজারে-৪ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়।ঘূর্নিঝড়ের প্রভাবে সাত ফুট উঁচু পযর্ন্ত জলোচ্ছ্বাস হতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে মোংলা ও সুন্দরবন উপকুলে বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়া বইছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে সংকেত বাড়ার সাথে সাথে মোংলা বন্দরে রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে। মোংলা বন্দরে বহিঃনোঙ্গরের ১৪টি বাণিজ্যিক জাহাজের পণ্য খালাস বন্ধ রাখা হয়েছে। বন্দর কর্তৃপক্ষ জানান, সবকটি বানিজ্যিক জাহাজ ও লাইটার জাহাজ কে নিরাপদে আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে। অন্যদিকে বন বিভাগের ৮৪টি ক্যাম্পের দায়িত্বে থাকা সকলকে নিরাপদে অবস্থানে যেতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মোংলায় ৮৪টি সাইক্লোন সেল্টার খুলে দেয়া হয়েছে। সাইক্লোন সেল্টারে আশ্রয় নেয়ার জন্য বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করা হচ্ছে। এদিকে, সুন্দরবনের দুবলার চরে শুটকি প্রক্রিয়া করনের জন্য সাগরে মৎস্য আহরনে থাকা উপকুলের ১৫ হাজার জেলে আশ্রয় নিয়েছে সুন্দরবনের দুবলারচরে ও আলোর কোলে। ওই চরে থাকা দুটি সাইক্লোন সেল্টারে শুক্রবার রাতে আশ্রয় নিয়েছে কিছু জেলে। কলাপাড়া উপকূল জুড়ে রাতে তেমন বৃষ্টি না হলেও সকাল থেকে ভারি বৃষ্টি এবং হালকা দমকা হাওয়া বইছে । সাতক্ষীরায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে রাত থেকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির সাথে শুরু হয়েছে হালকা দমকা হাওয়া। এদিকে, কাঁঠাল বাড়ী – শিমুলিয়া নৌরুটে বৈরী আবহাওয়ার কারণে বন্ধ রয়েছে লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল। তবে ফেরী চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানায় ঘাট কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে, বুলবুল আঘাত হানলে খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, ঝালকাঠি ও বরগুনাসহ উপকূলীয় জনপদে ত্রাণ ও উদ্ধার তৎপরতার জন্য খুলনা নৌঘাঁটি তিতুমীরে পাঁচটি জাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

You may also like

১২ নভেম্বর, মঙ্গলবার ২০১৯

সকাল ৮:৩০ : দিন প্রতিদিন বেলা ১১:০৫ :