ভুতুড়ে বিলের জন্য ২৯০ কর্মকর্তা-কর্মচারিকে শাস্তির সুপারিশ

ভূতুড়ে বিদ্যুৎ বিল কাণ্ডে পাঁচটি বিতরণ কোম্পানির ২৯০ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেছে বিদ্যুৎ বিভাগ। অনলাইন ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন বিদ্যুৎ সচিব ডক্টর সুলতান আহমেদ। জানান, গ্রাহকের কাছ থেকে নেয়া অতিরিক্ত বিল আগামী মাসে সমন্বয় করবে কোম্পানিগুলো। গত তিন মাসে বিলে অনিয়মের প্রায় ৫৫ হাজার অভিযোগ পাওয়ার কথাও জানান তিনি। করোনার সময়ে মিটার রিডিং না করে বিদ্যুতের বিল তৈরি করে ভোগান্তিতে ফেলা হয়েছে লাখ-লাখ গ্রাহককে। বিলম্ব মাসুল মওকুফ তো মেলেইনি, উল্টো ধরিয়ে দেয়া হয়েছে ভুতুড়ে বিল। গণমাধ্যমে গ্রাহকদের এ ভোগান্তির তথ্য প্রচার হওয়ায় কিছুটা নড়ে-চড়ে বসে বিদ্যুৎ বিভাগ। বিল সমন্বয়ের ঘোষণার পাশাপাশি তদন্তে গঠন করা টাস্কফোর্স। অনুসন্ধানে বিল দেয়ার ক্ষেত্রে বিতরণ কোম্পানির নানা অনিয়ম ও গাফিলতির সন্ধান পাওয়ায় কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করে টাস্কফোর্স।

রবিবার অনলাইন প্রেস ব্রিফিংয়ে বিদ্যুৎ সচিব জানান, ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে অনিয়মে জড়িত থাকা বিভিন্ন বিতরণ কোম্পানির প্রায় তিনশত কর্মকর্তা ও কর্মচারির বিরুদ্ধে । টাস্কফোর্সের তথ্য অনুযায়ী, বিতরণ কোম্পানির বিল নিয়ে প্রায় পঞ্চান্ন হাজার অভিযোগ দেন গ্রাহকরা। এরমধ্যে সবচে বেশি ৩৪ হাজার অভিযোগ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের বিরুদ্ধে। এরপর রাজধানীর বিতরণ কোম্পানি ডিপিডিসির বিরুদ্ধে ১৫ হাজার ২৬৬ টি, ডেসকোর ৫৬৫৬, নেসকোর ২৫২৪, ওজোপাডিকোর ৫৫৫ ও পিডিবির বিরুদ্ধে ২৫৮২ টি অভিযোগ জমা পড়ে। গ্রাহকদের এসব অভিযোগের সমাধান ও অতিরিক্ত বিল সমন্বয়ের কথা জানায় বিদ্যুৎ বিভাগ।  অনাকাঙ্খিত ভুলের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে গ্রাহকদের আস্থা ফিরিয়ে আনতে বিদ্যুৎ বিভাগ সচেষ্ট থাকবে বলেও জানানো হয় ব্রিফিংয়ে। রিশান নাসরুল্লাহ বাংলাভিশন, ঢাকা

You may also like

স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থী সিফাতের জামিন

পুলিশের মামলায় জামিন পেয়েছেন স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থী সাহেদুল ইসলাম