মিরপুরে-১১ নম্বরে উচ্ছেদ অভিযান, বিক্ষুব্ধদের হামলা

সড়কে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ হয়েছে রাজধানী ঢাকার মিরপুর-১১ নম্বরে। স্থানীয় জল্লা ক্যাম্প থেকে অভিযান পরিচালনাকারীদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেছে স্থানীয় বিহারীরা।

উচ্ছেদের খবর থাকায় মিরপুর-১১ নম্বরের ৪ নম্বর অ্যাভিনিউয়ের সব দোকানপাট বন্ধ ছিল। এছাড়া আশপাশেরও দোকানপাট বন্ধ করে রাখেন ব্যবসায়ীরা।সড়কে একটি স্থাপনা ভাঙতে গেলে স্থানীয়রা ডিএনসিসির কর্মকর্তা ও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়তে থাকেন। এ সময় ডিএনসিসির কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যরা পিছু হটেন। দফায় দফায় ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় সিটি করপোরেশনের একজন চালকসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। ইট-পাটকেলের আঘাতে ভেঙে যায় কয়েকটি বুলডোজারের গ্লাস। কিছুক্ষণ পর কয়েকশ পুলিশ ও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পিছু হটেন।

এরমধ্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের স্বার্থে বেলা সোয়া ১১টার দিকে ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আসলামুল হক ঘটনাস্থলে পৌঁছান। কোনো বাধাই অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ থামাতে পারবে না বলে হুঁশিয়ার করেছেন ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম। তিনি জানান, তাদেরকে বিভিন্ন সময়ে সিটি করপোরেশন থেকে নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। সে নোটিশ আমলে না নিয়ে উচ্ছেদ অভিযান বাধাগ্রস্তের অভিযোগ তুলেছেন তিনি। মেয়র আতিকুল আরও জানিয়েছেন, জনগণের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে উচ্ছেদ পরবর্তী রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ করা হবে।

পরে ১২টার দিকে ফের উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়। তবে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। স্থানীয় ব্যবসায়ী ও বিহারিদের বাধা উপেক্ষা করে রাজধানীর মিরপুর-১১ নম্বরের ৪ নম্বর অ্যাভিনিউয়ে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এসময় গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় রাস্তার পাশে থাকা শতাধিক অবৈধ দোকান।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বলছেন, বুধবার মৌখিকভাবে দোকান ভাঙার বিষয়টি সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। স্বল্প সময়ে দোকান থেকে মালপত্র তেমন বের করা সম্ভব হয়নি। আবার অনেকে অভিযোগ করেছেন, সিটি করপোরেশন ভাঙা কিংবা উচ্ছেদের বিষয়টি তাদেরকে অবহিত করেনি। এতে তারা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। কোনও জন্য বিকল্প ব্যবস্থা না করে, উচ্ছেদ অভিযান চালানোয় ক্ষোভ জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

অভিযানের নেতৃত্ব দেয়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ জানিয়েছেন, রাস্তার দু’পাশে ফুটপাতের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। সিটি করপোরেশনের মাস্টারপ্ল্যানে ৬৮ ফুট রাস্তার কথা বলা থাকলেও, অবৈধ দখলের কারণে রাস্তার পরিধি কমে যায়। রাস্তা দখলমুক্ত করতে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

You may also like

করোনায় ৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৬১৯ জন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও সাত জন