এডিস মশা এতদিন শুধু ডেঙ্গু উপহার দিতো, এখন চিকুনগুনিয়াও

মারণব্যাধি নয় বলেই প্রতিরোধ বা প্রতিকারের তেমন কোন উদ্যোগ নেই কোন পর্যায়েই । কিন্তু যে দীর্ঘমেয়াদী ব্যথা আর অসহায়বোধ চিকুনগুনিয়া দিয়ে যাচ্ছে, তাকে মৃত্যুযন্ত্রণার সঙ্গে তুলনা করছেন ভুক্তভুগীরা।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দাপটের সঙ্গেই আতঙ্ক ছড়িয়ে যাবে চিকুনগুনিয়া। শহুরে বাসাবাড়ির পরিষ্কার কোনায় পড়ে থাকা পানি এই রোগের উৎস বলেই সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগও পারছে না চিকুনগুনিয়াকে প্রতিহত করতে। তাই পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে ব্যাপক পর্যায়ে জনসচেতনতা তৈরির।

গত চার মাস ধরেই বাংলাদেশের ঘরে ঘরে যে আতঙ্ক হানা দিচ্ছে। সে চিকুনগুনিয়া। আফ্রিকান ভাষায় যার অর্থ বাঁকা ধনুক। ব্যথায় শরীরের হাড় ধনুকের মত বাঁকা হয় বলেই নাকি এই নাম। ষাট বছরেরও আগে যে রোগের জন্ম, এতদিনেও কেন তৈরি হলো না কোন প্রতিষেধক বা ওষুধ?

পরিচিত এডিস মশা এতদিন শুধু ডেঙ্গু উপহার দিতো। এখন সেই সঙ্গে দিয়ে যাচ্ছে চিকুনগুনিয়াও। শহরের মশা নিধন যাদের দায়িত্ব, সেই সিটি কর্পোরেশন বলছে, বাসাবাড়ির নির্জন কোনে এসি, ফ্রিজ বা ফুলের টবের পরিষ্কার পানি যেহেতু এডিস মশার প্রজনন স্থান। সিটি কর্পোরেশনের কামান সেখানে খুব গুরুত্বপূর্ণ নয়।

সরকারি হিসেবে এ পর্যন্ত সারা দেশে তিরিশ হাজারের মত চিকুনগুনিয়া রোগি সনাক্ত হলেও আসল সংখ্যাটি যে এর কয়েক গুন তা স্বীকার করছেন সবাই। গোটা বর্ষাকাল তথা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চিকুনগুনিয়ার দাপট বহাল থাকবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

You may also like

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিএনপি কী বললো তাতে কিছু যায় আসে না- স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন,