বাংলাদেশ ফুটবলকে ঘিরে কোন আশার আলোই দেখছেন না বিশ্লেষকরা

ক্রমেই অবনতির দিকে যাওয়া বাংলাদেশ ফুটবলকে ঘিরে কোন আশার আলোই দেখছেন না বিশ্লেষকরা। একে তো বর্ষা মৌসুম, তারোপর বড় ক্লাবগুলোর ঢাকার বাইরে খেলার অনাগ্রহে- প্রিমিয়ার লিগ বঙ্গবুন্ধু স্টেডিয়াম কেন্দ্রিক হয়ে পড়েছে। বিশ্লেষকরা বলেছেন, কর্দমাক্ত মাঠে এক ভেন্যুতে নিয়মিত ম্যাচ আয়োজন-শুধু ভালো ফুটবলের পরিপন্থিই নয়; দায়সারা ও পরিকল্পনাহীন ভাবে ঘরোয়া ফুটবল আয়োজনে- খেলার মানের শুধুই অবনতি হচ্ছে।

ঘরোয়া ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদাপুর্ণ আসর প্রিমিয়ার লিগ। কিন্তু বাফুফের পরিকল্পনাহীনতায় এই লিগ মাঠে গড়িয়েছে বর্ষাকালে। ফলে যা হবার তাই হয়েছে, কর্দমাক্ত মাঠে ধুঁকছে ফুটবল চরম দুর্দশায়। আবাহনী, শেখ রাসেলের মতো স্বিকৃত শক্তির দলগুলো হোঁচট খেয়েছে অপেক্ষাকৃত দুর্বল দলগুলোর কাছে। বিশ্লেষকরা বলেছেন, বর্ষা মৌসুমে, বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামেই উপর্যুপরি খেলায়, ঘরোয়া ফুটবলের মান আরো নিম্নমুখি হচ্ছে।সাবেক ফুটবলাদের অভিযোগ বাফুফের স্বার্থন্বেসী কর্মকতাদের কারনেই ফুটবলে এই লেজেগোবরে অবস্থা। ক্লাব কর্মকর্তারাই বাফুফেতে থাকায় ব্যর্থ হচ্ছে অনেক পরিকল্পনা। দায়সারা লিগ আয়োজনে অপ-ব্যবহার হচ্ছে ফিফা ও এএফসি থেকে প্রাপ্ত অনুদান।বড় ক্লাবগুলোর অনিহায় পেশাদার লিগে ঢাকার বাইরে ভেন্যু বাড়াতে পারছেনা বাফুফে। বিশ্লেষকরা বলেছেন, এতে দেশব্যাপী ফুটবলকে ছড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না এবং দক্ষ খেলোয়াড়ও উঠে আসছেনা। চরম দুরাবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এদেশের ফুটবল। বাফুফের বর্তমান কমিটির অধিনে ফুটবলকে ঘিরে কোন সম্ভনাই দেখছেন না বিশ্লেষকরা।

 

 

You may also like

আজ থেকে শুরু হয়েছে ঈদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি

আজ থেকে শুরু হয়েছে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি।