কৈশোর ছুঁয়েছে বাংলাভিশন

বারো বছর পেরিয়ে তেরো বছরে যাত্রা শুরু করল দেশের অন্যতম বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল বাংলাভিশন। দর্শকদের ভালোবাসা এবং ভালোলাগাকে সাথী করেই, এতগুলো বছর পার করেছে এই গণমাধ্যমটি। ঘটনাবহুল এই এক যুগে দেশের অন্যতম টিভি চ্যানেলে পরিণত হওয়াসহ অনেক কিছুই আছে অর্জনের তালিকায়। সেসব অর্জনের মধ্যে দর্শকদের নিরবচ্ছিন্ন ভালোবাসাকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয় বাংলাভিশন। বাংলাভিশনের অঙ্গীকার, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সক্রিয় থেকে, তথ্য ও বিনোদনে দেশের সবাইকে সমৃদ্ধ করে যাওয়া।

কৈশোর ছুঁয়েছে বাংলাভিশন। পথ চলার শুরুটা ২০০৬ এর ৩১ মার্চ। দেশের ষষ্ঠ বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল হিসেবে যাত্রা । দীর্ঘ পথ পেরিয়ে তেরো বছরে পা দিল বাংলাভিশন। দর্শকদের চাওয়া-পাওয়া পূরণ করে ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে অনেক পথ পাড়ি দিয়ে আজকের এই অবস্থানে । যাত্রার শুরু থেকেই পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করে সুস্থ্য প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সবাইকে টপকে যাওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে বাংলাভিশন। নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দি হয়ে চলছে নিজকে ছাড়িয়ে যাবার চেষ্টা।

নিরপেক্ষ সাংবাদিকতায় বিশ্বাসী বাংলাভিশন অর্জন করেছে সবার আস্থা ও বিশ্বাস। সবার আগে সবশেষ সংবাদ জানিয়ে বাংলাভিশন জায়গা করে নিয়েছে কোটি মানুষের হৃদয়ে। ঘটনা বা দুর্ঘটনা, যেখানে সংবাদ সেখানেই বাংলাভিশন। সবার আগে সবশেষ খবরটি জানাতে তৎপর বাংলাভিশন সংবাদের এক ঝাঁক প্রানোচ্ছল কর্মীবাহিনী।

কী সংবাদ, কী বিনোদন। সবকিছুতেই বাংলাভিশন থাকতে চায় সবার ওপরে। নানা উৎসব-পর্বনে বাংলাভিশনের আয়োজন নিয়ে গর্ব করতেই পারেন সাধারন দর্শকরা। অনুষ্ঠান, নাটক,টেলিফিল্ম,সিনেমা,গানসহ বিনোদনের সব ক্ষেত্রেই সবার চেয়ে একটু আলাদা বাংলাভিশন। দীর্ঘ এ চলার পথে নানা চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে এখন দেশ ছাড়িয়ে মধ্যপ্রাচ্য, আফ্রিকা,ইউরোপ ও আমেরিকায় থাকা লাখো বাংলাভাষী দর্শকদের কাছেও জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে বাংলাভিশনের পরিবেশনা।

প্রচারে সবশেষ তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারে কাজ করছে বাংলাভিশনের নানা বিভাগের সদস্যরা। দর্শক আর কর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে নিরলস পরিশ্রম ও স্বচ্ছতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন বাংলাভিশন পরিবারের প্রতিটি বিভাগের দক্ষ কর্মীরা। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর এই ক্ষণে দর্শক, শুভানুধ্যায়ী, বিজ্ঞাপনদাতা, ক্যাবল অপারেটরদের ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানিয়ে ভবিষ্যতেও সহযোগিতা কামনা করছে বাংলাভিশন পরিবার।

উৎকর্ষের এ ধারাবাহিকতা ভবিষ্যতেও বজায় থাকবে প্রতিষ্ঠানের জন্মবার্ষিকীতে এমন অঙ্গীকার করেছেন বাংলাভিশন কর্তৃপক্ষ। মিলনের এ দিনে সবার প্রত্যাশা বাংলাভিশন বেঁচে থাকুক হাজার বছর। গৌরবের মাথা আরো উচু হোক আপামর জনগণের ভালোবাসা নিয়ে। দীর্ঘ চলার পথে বাংলাভিশন হারিয়েছে তার বেশ কয়েকজন কর্মীকে। ভাললাগা-ভালোবাসার এ দিনে শ্রদ্ধাভরে তাদের স্মরণ করছে বাংলাভিশন পরিবার। তাদের শূন্যস্থান পূরণ করে বাংলাভিশন সবার প্রত্যাশা মেটাতে পারবে-এটাই আমাদের দৃঢ় অঙ্গীকার, আজকের শপথ।

You may also like

প্রধানমন্ত্রীত্ব নয়,জনসেবাই আমার মূল লক্ষ্য : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর পদ মূল্যবান নয়, এ পদে থেকে দেশের