লড়াই

লড়াই

বাংলাভিশনে ধারাবাহিক নাটক ‘লড়াই’

ধারাবাহিক নাটক ‘লড়াই’ বাংলাভিশনে প্রচারিত হচ্ছে প্রতি সপ্তাহে বৃহস্পতি থেকে শনিবার রাত ৯টা ৪৫মিনিটে। মুহাম্মদ মামুন-অর-রশীদ-এর রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন আল হাজেন। নাটকটিতে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, রিচি সোলায়মান, নাদিয়া, রওনক হাসান, আমিরুল হক চৌধুরী, ওয়াহিদা মল্লিক জলি, ডা. এজাজ, আরফান আহমেদ, জুঁই করিম, চিত্রলেখা গুহ, আহসানুল হক মিনু, ছায়কা আহমেদ, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, অয়ালিয়ুল হক রুমি প্রমুখ।

ছগিরের দুই স্ত্রী। তাদের মধ্যে সবসময় ঝগড়া হয়। তাদের ছেলে-মেয়েরাও কম যায় না। ঘর থেকে দৌড়ে আসেন ছগির। বুকে হাত লুটিয়ে পড়েন মাটিতে। বড় বউ ছোট বউ দৌড়ে আসেন। শাপলা, জবার কান্নায় প্রতিবেশিদের জটলা জমে। বাবার মৃত্যুতে বিকার নেই দুই ছেলের। উল্টো পিন্টু-মিন্টুর ঝগড়া শুরু হয়। কে গোরস’ করবে। কে শেষ বিদায় জানাবে। না কেউ পাগল নয় এই কাজটি করার জন্য! পিন্টুর হঠাৎই উচ্চরণ তোর আব্বা মারা গেছে তোদের যেহেতু বেশি ভালবাসতো তুই যা। মিন্টুর সাফ কথা, না আব্বাতো আর আমার একার না। আর বড়দেরই বেশি দায়িত্ব থাকে। সম্ভবত পিতার লাশের সামনে এই রকম ঘটনা বিরল।
অনেকটা কাকতালীয়ভাবেই বড় জামাই জমির এসে হাজির হয়। বড় জামাই বড় হিসেবেই সিদ্ধান- দেয় লোকটাকে নদীতে ফেলে দিতে হবে। যে সারাজীবন এত সমস্যা করেছে তার কবর বাঁধিয়ে রাখার কোন দরকার নেই। ছগিরকে নদীতে ফেলে দেয়ার জন্য ভ্যানে তোলা হয়। অসংখ্য মানুষ এগোচ্ছে। এ এক অন্য রকম শেষ যাত্রা। ছগিরের মৃতদেহ পানিতে ফেলে দেয়া হয়।
ছগিরের ঘুম ভাঙ্গে। এই কি তার শেষ পরিণতি। নিজের কাছে নিজেই প্রশ্ন করে। ছগির উঠানের মাঝখানে এসে বিলাপ করে। এই ছেলেরাতো আমার মৃত্যুর পর আমাকে পানিতে ফেলে দিতে চাইছিলো। দবিরুল বুঝতে পারে, চাচা রাত্রে স্বপ্ন দেখেছে। কারণ তাদের পরিবারে সবসময় ঝগড়া হয়। পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়েই এই ধারাবাহিক ‘লড়াই’। নানা ঘটনার মধ্য দিয়ে এগিয়ে যায় নাটকের গল্প।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও

গুগলের সিইওর বেতন কত হতে পারে?

বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান গুগলের প্রধান নির্বাহী