মোংলা উপজেলায় শিক্ষাখাতের দূর্নীতি, সহযোগিতায় শিক্ষা অফিসার

বাগেরহাটের মোংলা উপজেলায় প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের সরকারি বরাদ্দের লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি চক্র। কয়েকজন দূর্নীতিবাজ শিক্ষক ও শিক্ষা অফিসার তাদের সহযোগিতা করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। মোংলা উপজেলায় প্রাইমারি স্কুল ৭১টি। ২০১৯-২০ অর্থ বছরে শিশুদের বিভিন্ন সামগ্রী কিনতে বরাদ্দ হয় ৪২ লাখ ৬০ হাজার টাকা। কিন্তু মালামাল কেনার আগেই এই টাকা তুলে নেয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে স্কুল বন্ধ থাকায় টাকাগুলো নয় ছয়ের অভিযোগ উঠেছে শিক্ষক আর শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে।

এ বিষয়ে জানতে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে গেলে দেখা যায় অসাধু চক্রের কয়েকজন বসে টাকা ভাগাভাগিতে ব্যস্ত। যদিও তারা দাবি করেন মালামাল কিনতেই প্রতিটি স্কুল থেকে ৯ লাখ ৫৮ হাজার টাকা আদায় করা হয়েছে। সেগুলোরই হিসাব হচ্ছে। তবে টাকা আদায়ের বিষয়টি অস্বীকার করেন প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার। যদিও ভিডিও দেখে সুর পাল্টান তিনি। শিক্ষাখাতের দূর্নীতি অবসানে দালাল চক্রকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার দাবি মোংলাবাসির।

You may also like

বাঁধাকপি বিদেশে রফতানি, খুশি চাষীরা

বাংলাদেশের বাঁধাকপি এখন বিদেশে রফতানি হচ্ছে। এরই মধ্যে