ছাত্রলীগ কর্মীসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের চার্জ গঠন

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণের ঘটনায় ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমানসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেছেন সিলেটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক মো. মোহিতুল হক।

চার্জ  গঠনের সিদ্ধান্ত জানানোর সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন অভিযুক্ত ৮ আসামি। সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে গণধর্ষণ মামলার চার্জশিট এ বছরের ১২ জানুয়ারি গ্রহণ করেন একই আদালত। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রাশিদা সাইদা খানম জানান, আসামিদের উপস্থিতিতে আদালত চার্জগঠন করলে দুই আসামি জামিন ও তিন আসামি ডিসচার্জ আবেদন করলে তা না মঞ্জুর করেন আদালত। আসামিপক্ষের আইনজীবী মো: হাসান জানিয়েছেন, মামলার চার্জশিট ভালো হয়েছে। স্বাক্ষ্য প্রমানে প্রকৃত

গত বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ । ছাত্রাবাসের আঙিনায় স্বামীকে আটকে রেখে প্রাইভেটকারের ভেতর ওই গৃহবধূকে গণধর্ষণ করা হয়। পুলিশ ধষর্ণের শিকার নারীকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। ওসিসিতে তিন দিন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফেরেন তিনি। ওই রাতেই গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে মহানগরের শাহপরাণ থানায় আওয়ামী লীগ নেতা রঞ্জিত সরকারের অনুসারী ছয় ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামলার পরিপ্রেক্ষিতে র‍্যাব ও পুলিশের অভিযানে মামলার এজাহারভূক্ত ছয় জনসহ মোট আট জনকে গ্রেফতার করে। রিমান্ড শেষে তাদেরকে আদালতে হাজির করা হলে আটজনই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়।

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী ধর্ষণে সরাসরি যুক্ত আসামিরা হলো- মো. আইনুদ্দিন ও মিসবাউল ইসলাম রাজন, সাইফুর রহমান, শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি, তারেকুল ইসলাম তারেক, অর্জুন লস্কর। ধর্ষণে সহযোগিতার জন্য আসামি করা হয়েছে মো. রবিউল হাসান ও মাহফুজুর রহমান মাসুমকে।

You may also like

করোনায় ৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৬১৯ জন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও সাত জন