হাতিয়ায় নির্যাতন ও ভিডিও ভাইরালের মামলা: গ্রেফতার ৫

নোয়াখালীর হাতিয়ায় পল্লী চিকিৎসকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন এবং ভিডিও ছড়ানোর অপরাধে ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় এজহারভুক্ত পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার দুপুরে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিং-এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জেলা পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন। এসময় তিনি জানান, পহেলা জানুয়ারি হাতিয়া এলাকার কয়েকজন বখাটে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক মহিউদ্দিন ও এক গৃহবধূকে গাছে বেধে নির্যাতন করে। পরে এ নির্যাতনের ঘটনাটি তারা মোবাইলে ধারণ করে এবং তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। এ বিষয়টি জানাজানির পর বরিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জেলা পুলিশ সুপার।

রবিবার নির্যাতনের শিকার পল্লী চিকিৎসক বাদী হয়ে হাতিয়া থানায় ১১জনকে আসামি করে মামলা করেন। রাতেই বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে অপর এক গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয় বখাটেরা। এই ঘটনায় দেশব্যাপী ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। দেশজুড়ে প্রতিবাদের মধ্যে সরকার ধর্ষণের সাজা বাড়িয়ে মৃত্যুদণ্ডের বিধান করে।

You may also like

জিয়াউর রহমানের অবস্থান স্বাধীনতাযুদ্ধের ইতিহাসের ক্ষুদ্র জায়গায় : কৃষিমন্ত্রী

পাকিস্তানের এ দেশীয় দোসর ও তাঁবেদাররা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা