তিস্তার রাক্ষুসি রূপ লন্ডভন্ড করে দেয় কৃষি অর্থনীতি

খরা, বন্যা ও ভাঙনে সব হারিয়ে নিঃস্ব হয়েও তিস্তা আকড়ে পড়ে থাকে উত্তরের লাখো মানুষ। তিস্তা নির্ভর এখানকার কৃষি অর্থনীতি বাঁচাতে সরকারের নেয়া মহাপরিকল্পনায় আশায় বুক বেঁধেছে নদী পাড়ের মানুষ। বর্ষায় তিস্তার রাক্ষুসি রূপ লন্ডভন্ড করে দেয় এলাকার কৃষি অর্থনীতি। আর শুকনোয় ক্ষীণধারায় বয়ে যায় এ নদী। রুপ নেয় বালুময় প্রান্তরে। একসময়ের প্রমত্তা এ নদীর ভাঙা গড়ার খেলার সাথে ঘোরে লাখ লাখ সংগ্রামী মানুষের জীবন-জীবিকা ও ভাগ্যের চাকা।

খরা, বন্যা ও ভাঙনে নদী পাড়ের কৃষি এখন বিপন্ন। লাখো মানুষ ঘরহারা। সরকারের মহাপরিকল্পনা দ্রুত বাস্তবায়নের দাবিতে মাঠে নেমেছে তিস্তা বাচাঁও, নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদ। গত আড়াই বছর ধরে ‘পাওয়ার চায়না’ নামের একটি কোম্পানী নদী ভাঙন, প্রতিরোধ ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করলেও তার কোন সুফল পায়নি স্থানীয়রা। সরকারের মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে আবারো প্রাণ ফিরবে তিস্তা পাড়ে, বাঁচবে জীববৈচিত্র আশা বিশেষজ্ঞদের। তিস্তা বাঁচাতে পানির সুষ্ঠূ বন্টন, খনন ও তীর সংরক্ষন জরুরি বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

 

You may also like

১৮ জানুয়ারি, সোমবার ২০২১

সকাল ৮:২৫ : বাংলায় ডাবিংকৃত জনপ্রিয় চাইনিজ শিশুতোষ