কৃষি আইন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের তোপের মুখে কেন্দ্রীয় সরকার

ভারতের সুপ্রিম কোর্টেও সমালোচনার মুখে পড়লো বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার। কৃষি আইনের বিরুদ্ধে শুনানিতে কেন্দ্রীয় সরকারকে ইঙ্গিত করে তীব্র সমারোচনা করেছে সুপ্রিম কোর্ট। সেইসাথে এই সঙ্কট সমাধানে একটি কমিটি গঠনের নির্দেশও দিয়েছে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত।

সোমবার শুনানি চলাকালে কৃষক বিদ্রোহ ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের সদিচ্ছার অভাব ও আইন প্রণয়নে একগুঁয়েমির অভিযোগ তুলেছেন প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের বেঞ্চ। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন জেনারেল তুষার মেহতা। তবে, তাঁর যুক্তি ধোপে টেকেনি। প্রধানবিচারপতি বোবদের তোপের মুখে পড়েন পাল্টা যুক্তি উত্থাপনকারীরা। কৃষক সঙ্কট মোকাবেলায় কেন্দ্রীয় সরকারের নানা পদক্ষেপে বিরক্তি প্রকাশ করে হতাশা জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

অমানবিক ও সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি সামাল দিতে ৩টি কৃষি আইন আপাতত স্থগিত রাখার ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রকে নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। কৃষক সংগঠনের তীব আপত্তি উপেক্ষা করে গত বছরের সেপ্টেম্বরে সংসদে পাশ হওয়া ৩টি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে এরই মধ্যে অনেকগুলো মামলা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। সেই মামলাগুলি একত্রিত করে শুনানি চলছে প্রধান বিচারপতির বেঞ্চে।

প্রধান বিচারপতি কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, ‘‘কৃষি আইনের নয়া সংশোধনী বাতিল করতে কোনও সাড়া নেই কেন? কেন্দ্র এই আইন বাতিল করতে রাজি হলেই আমরা কৃষকদের আলোচনার টেবিলে বসতে বলব। স্পষ্ট করে বলুন, আপনারা আইনটি বাতিল করবেন, নাকি আদালত করবে? আমরা বুঝতে পারছি না, কেন যে কোনও প্রকারে এই আইন চালু করতে চাইছে সরকার।’’

প্রধান বিচারপতি বোবদে আরও বলেন, ‘‘কৃষক সঙ্কট ইস্যুতে কোনও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হলে তার দায় নেবে কে? সংবিধানকে রক্ষার দায়িত্ব আদালতের। কোনও সমস্যা হলে তার জন্য দায়ী থাকব আমরা প্রত্যেকেই। আমরা চাই না, কেউ আহত হোন বা রক্তপাত হোক।’’

You may also like

অনৈতিক কাজে ক্ষমতা খাটাবেন না নয়া মেয়র

অন্যায়-অনৈতিক কাজে ক্ষমতাকে ব্যবহার না করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে