আবারও অভিশংসিত ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের প্রথম প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বিতীয়বারের মত অভিশংসিত হলেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার প্রতিনিধি পরিষদে অনুষ্ঠিত ভোটাভুটিতে মার্কিন কংগ্রেস দ্বিতীয় দফা অভিশংসন করেছে তাকে। গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে সহিংসতা উস্কে দেয়ার দায়ে ট্রাম্পের এই অভিশংসন।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) প্রতিনিধি পরিষদে ২৩২-১৯৭ ভোটে অভিশংসন প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। এতে ডেমোক্র্যাটরা তো বটেই, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এদিন ভোট দেন তার নিজ দলের ১১ জন রিপাবলিকান সদস্য। এর আগে, ২০১৯ সালে ইউক্রেন কেলেঙ্কারির কারণে কংগ্রেসে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রথম দফা অভিশংসন করা হয়েছিল।

তবে রিপাবলিকান সিনেট নেতা মিচ ম্যাককনেল ২০ জানুয়ারির আগে ট্রাম্পকে অপসারণে একমত নন। আর সিনেটের অধিবেশন আপাতত বসছে না। তাই আর এক সপ্তাহ তার মেয়াদ থাকায় ট্রাম্পকে এক্ষুনি বিদায় নিতে হচ্ছে না। তবে এ অভিশংসনের মাধ্যমে ক্ষমতা ছাড়ার পরও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিচারিক প্রক্রিয়া চালিয়ে নেয়া যাবে। এর আগেও, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ক্ষমতার অপব্যবহারের জেরে অভিশংসিত হয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। অভিশংসনের পর হোয়াইট হাউসের টুইটার অ্যাকাউন্টে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে ট্রাম্প আর কোন সহিংসতা, আইনভঙ্গ ও ধ্বংসযজ্ঞ যেন না হয় সেই আহবান জানিয়েছেন।

গত ৬ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আহ্বানে ওয়াশিংটন ডিসিতে জড়ো হওয়া সমর্থকদের তাণ্ডবে ক্যাপিটল ভবন হয় রক্তে রঞ্জিত। নিহত হন পাঁচজন। কংগ্রেসের অধিবেশনে যখন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনকে প্রত্যয়িত করা হচ্ছিল, তখনই মার্কিন ইতিহাসের ন্যক্কারজনক ঘটনাটি ঘটে। লোকজন দরজা–জানালা ভেঙে ক্যাপিটল হিলে ঢোকে এবং অফিস তছনছ করে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের আহ্বানে সারা যুক্তরাষ্ট্র থেকে সমর্থকদের সমাবেশ ঘটেছিল ওয়াশিংটন ডিসিতে।

You may also like

কুষ্টিয়ায় ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত; রাজশাহী থেকে খুলনার ট্রেন চলাচল বন্ধ

মালবাহী ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়েছে কুষ্টিয়ায়। এতে বন্ধ