৪ বছরে ট্রাম্পের ৩০ হাজার ৫৭৩ মিথ্যা!

নানা নাটকীয়তার পর হোয়াইট হাউজ ছাড়লেও সমালোচনা পিছু ছাড়েনি যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। এবার তাঁর নামের পাশে জুড়ে বসেছে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের সবচে’ মিথ্যুক প্রেসিডেন্টের তকমা। জরিপের ভিত্তিতে দাবির সমর্থনে একটি প্রতিবেদন ছেপেছে দেশটির প্রথম সারির সংবাদপত্র ‘দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট’।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের পর নানা ঘটনায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের রোষাণলে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম। প্রেসিডেন্ট তরফ থেকে একের পর এক কটাক্ষ আর নিন্দার জবাবও সভ্যতার গণ্ডির ভেতরে থেকেই দিয়ে গেছেন গণমাধ্যমকর্মীরা। অপমানের শোধ নিতে তথ্য ও যুক্তির মিশেলে ট্রাম্পকে অস্বস্তিতে ফেলে বিব্রত করার কোন সুযোগ হাতছাড়া করেনি প্রভাবশালী মার্কিন গণমাধ্যমগুলো। এরমধ্যে, বেশ সরস ভূমিকা রেখেছে নিউ ইয়র্ক টাইমস, দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট, সিএনএন-এর সাংবাদিকরা।

এবার যুক্তরাষ্ট্র শাসনের চার বছরে ট্রাম্পের মিথ্যার ঝুলি ঘেটে জনসম্মুখে নিয়ে এসেছে মার্কিন গণমাধ্যম ‘দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট’। শুধু এতেই মুক্তি মেলেনি ট্রাম্পের। গণমাধ্যমটি আমেরিকার ইতিহাসে সবচেয়ে মিথ্যেবাদী প্রেসিডেন্টের তকমাও বসিয়ে দিয়েছে ট্রাম্পের নামের পাশে। নানা জরিপ দিয়ে গণমাধ্যমটি দেখিয়েছে ২০১৭ সালের ২০ জানুয়ারি থেকে ২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি সকালে হোয়াইট হাউস ছাড়ার আগপর্যন্ত ট্রাম্প প্রকাশ্যে ৩০ হাজার ৫৭৩ বার মিথ্যে দাবি করেছেন।

‘দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট’ জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার আগেও বিচক্ষণ মন্তব্যে তেমন সুখ্যাতি ছিল না ট্রাম্পের। নির্বাচনী প্রচারেও বিভিন্ন অযৌক্তিক দাবি করতে দেখা যায় তাঁকে। ট্রাম্পের ভ্রান্ত তথ্য উপস্থাপনের এই প্রবণতা থাকায় তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর প্রথম ১০০ দিন তাঁর প্রতিটি মন্তব্যের রেকর্ড রাখতে শুরু করে গণমাধ্যমটি। পরে পাঠকদের অনুরোধে নিয়মিত রেকর্ড রাখা শুরু হয় ট্রাম্পের নানা বক্তব্য। এজন্য, জন্য বিশেষ ‘ফ্যাক্ট চেক টিমও তৈরি করা হয়।

ট্রাম্প ক্ষমতার মসনদ ছেড়ে হোয়াইট হাউস ছেড়ে গেলেও পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ-সিনেটে তাঁর ইমপিচমেন্ট শুনানি এখনও বাকি। এরমধ্যেই, গণমাধ্যমে আসা এই প্রতিবেদন কেবল অস্বস্তিই বাড়াবে প্রাক্তন প্রেসিডেন্টের।

You may also like

আইজিপি’র সাথে বিএনপির বৈঠক

পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদের সাথে বৈঠক করেছেন বাংলাদেশ