টাকার বিনিময়ে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা, ২৩ জন আটক

ভারতে অনুপ্রবেশের জন্য অপেক্ষমান ২২ জনকে সাতক্ষীরার বাঁশদহা সীমান্ত থেকে আটক করেছে পুলিশ। কোন পাচারকারীকে ধরতে না পারলেও তাদের সহযোগী এক নারীকে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোর রাত সাড়ে ১২টার দিকে সদর উপজেলার বাশদহ ইউনিয়নের কুলিয়াডাঙ্গা গামেরর মোখলেছুর রহমানের বাড়ি থেকে পাসপোর্টবিহীন ২২ বাংলাদেশীকে আটক করা হয়। সুযোগ বুঝে তাদের অবৈধভাবে ভারতে ঢোকানোর জন্য সেখানো রাখা হয়েছিলো। পাচারকারী চক্রের কাউকে ধরতে না পারলেও তাদের সহযোগী ভ্যানচালক মোখলেছুরের স্ত্রী নাসিমা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে ১০জন পুরুষ, ১০জন নারী ও দুইজন অপ্রাপ্ত বয়স্ক  কন্যা। এদের মধ্যে নড়াইল জেলার ১৫জন, খুলনার তিনজন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার দুইজন, রংপুরের একজন ও মুন্সীগঞ্জ জেলার একজন বাসিন্দা। আটককৃতরা জানিয়েছেন, কাজের জন্য ভারতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে তারা এখানে এসেছেন। টাকার বিনিময়ে পাসপোর্ট ছাড়াই ভারতে পার করে দেয়ার আশ্বাস দিয়ে তাদের বাশদহ ইউনিয়নের কুলিয়াডাঙ্গার মোখলেছুরের বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। বৃহস্পতিবার রাতে সীমান্ত দিয়ে তাদের ভারতে পাচারের কথা ছিল।

আটক মোখলেছুরের স্ত্রী নাছিমা বেগম প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, তার স্বামী দালাল চক্রের সাথে জড়িত নয়। তার স্বামী শুধু যাত্রী বহন করেছে। কলারোয়া কেড়াগাছির আনারুল ইসলাম ও একই গ্রামের কাজিরুল ইসলাম এবং বাশদহ ইউনিয়নের তলুইগাছা গ্রামের বাবলু এই ২২জনকে রেখে গেছে বলেও জানিয়েছে সে। সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামন জানিয়েছেন, ‘জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে আটককৃত ২২ জন স্বীকার করেছেন কেউ ১০ হাজার, কেউ ১৭ হাজার কেউ ১৮ হাজার টাকার বিনিময়ে ভারতে প্রবেশ করবে বলে এখানে এসেছেন। তারা কেউ দালাল চক্রের সদস্যদের চেনেন না। মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে এসেছেন। তাদের সকলের অভিভাবকদের খবর দেওয়া হয়েছে।’ জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইননানুগ ব্যবস্থার কথা জানিয়েছেন তিনি।

You may also like

করোনায় ৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৬১৯ জন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও সাত জন