অমর একুশে: বাঙালির অহংকারের দীপশিখা

শহীদ দিবস অমর হোক

আজ অমর একুশে ফেব্রুয়ারি। রফিক, সালাম, জব্বারের বুকের রক্তে দ্রোহের স্ফুলিঙ্গ ছড়ানোর দিন।

আজ বাংলা ভাষার দিন। বাঙালির গর্ব, অহংকারের দিন। জাতি হিসেবে গর্ব করার মতো অল্পকিছু উপাদানের শুরুতেই আছে আমাদের ভাষা, প্রাণের ভাষা, বাংলা ভাষা। ১৯৯৯ সালে এই একুশে ফেব্রুয়ারিকে জাতিসংঘের ইউনেস্কো আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের সম্মান দিয়েছে। বিশ্বব্যাপী এখন পালিত হয় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

একুশে ফেব্রুয়ারি আমাদের আত্মত্যাগের মন্ত্র শিখিয়েছে। জাতি হিসেবে আমরা নিজের অধিকার প্রতিষ্ঠায় উদ্বুদ্ধ হয়েছি। মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষায় বাঙালি তরুণদের রক্তে শুধু ঢাকার রাজপথই রঞ্জিত হয়নি- মাতৃভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার চেতনায় বায়ান্নর একুশে ফেব্রুয়ারি দেশের মানুষকেও উদ্দীপ্ত করেছিলো প্রতিবাদের বারুদশিখায়। একুশে ফেব্রুয়ারি তাই বাঙালি জাতির বিদ্রোহী চেতনায় রঞ্জিত হওয়ারও দিন।

একুশে ফেব্রুয়ারি বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলনে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। ভাষা শহীদদের রক্ত পুরো জাতিকে প্রতিবাদী ও প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হতে প্রেরণা যুগিয়েছে। এর পর রচিত হয়েছে পর্যায়ক্রমিক আন্দোলনের ইতিহাস। ’৫৪-র নির্বাচনে যুক্তফ্রন্টের বিজয়, আইয়ুব খানের সামরিক শাসনবিরোধী আন্দোলন, ’৬২-র শিক্ষা আন্দোলন, ’৬৬-র স্বাধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াই, ’৬৯-র গণঅভ্যুত্থান, ’৭০-এর জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের জয়লাভ এবং ’৭১-এর মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাঙালির স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র বাংলাদেশ। বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসের প্রতিটি পর্যায়ে ’৫২-র ভাষা আন্দোলন অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে। তাই একুশ সংখ্যাটি আমাদের জাতীয় জীবনে এক অন্তহীন প্রেরণার উৎস।

যদিও গণিত শাস্ত্রের হিসাবে একুশ নেহায়েতই একটি সংখ্যা। কিন্তু বাঙালি জাতির জীবনে এটি সাধারণ কোনো সংখ্যা বা তারিখ নয়। এটি এক অনির্বাণ প্রত্যয়ের স্মারক। অমর একুশের চেতনা বাঙালি জাতির গৌরবদীপ্ত সূচক। বাঙালির অহংকারের প্রতিচ্ছবি। এই সংখ্যার আগে ‘অমর’ যুক্ত করে আমরা জাতিসত্তার ইতিহাসের সংগে একুশের চেতনাকে একীভূত করেছি। এই দীপশিখাকে চির অম্লান রেখে আমরা প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে হেঁটে চলেছি।

একুশের শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা। শহীদ স্মৃতি অমর হোক।

 

You may also like

স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছে নয় বিশিষ্টজন ও এক প্রতিষ্ঠান

দেশের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কার এবারের স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন