প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই খালেদা জিয়াকে মুক্তির সিদ্ধান্ত

পরিবারের আবেদনে সাড়া দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাহী আদেশে দুই শর্তে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ছয় মাসের জন্য বেগম জিয়ার সাজা স্থগিত করে মুক্তি দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। বেগম জিয়ার অসুস্থতা, বয়স ও মানবিক দিক বিবেচনা করে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান তিনি।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামালায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের সাজা হয় বিএনপি চেয়ারার্সন বেগম খালেদা জিয়ার। এরপরই তাঁর ঠাই হয় কারাগারে। সেখানে অসুস্থ হয়ে পড়লে বেগম জিয়াকে ভর্তি করা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে এরপর থেকে বেগম জিয়ার জামিনের জন্য উচ্চ আদালতে বার বার আবেদন করা হলেও তাতে সাড়া মেলেনি।

সবশেষে বিএনপি চেয়ারপার্সনের মুক্তির জন্য সরকারের কাছে আবেদন করে তাঁর পরিবার। এতে সাড়া দিয়ে সরকার বেগম জিয়াকে ছয় মাসের জন্য মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। গুলশানে নিজ বাসভবনে এ কথা জানান তিনি। বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা ও বয়স বিবেচনা করে সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বলে জানান তিনি। তবে বেগম জিয়া কখন ছাড়া পাচ্ছেন তা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ব্যাপার বলে জানান আনিসুল হক।

 

You may also like

বাঁধাকপি বিদেশে রফতানি, খুশি চাষীরা

বাংলাদেশের বাঁধাকপি এখন বিদেশে রফতানি হচ্ছে। এরই মধ্যে