বরিশালে ধর্ষকের ফাঁসি, খাগড়াছড়িতে স্বামীর হত্যাকারীর মৃত্যুদণ্ড

বরিশালে আট বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় ধর্ষক কালুর ফাঁসির আদেশ

বরিশালে আট বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা ও তার লাশ গুমের ঘটনায় আসামি আবুল কালাম আজাদ ওরফে কালুকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো: আবু শামীম আজাদ আসামির  উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৮ সালের ১১ মার্চ পূর্ব গণপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী সীমা আক্তারকে অপহরণের পর ধর্ষণ করে কালু। পরে তাকে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখে একটি কবরস্থানে। এ ঘটনায় কালুকে আসামি করে এয়ারপোর্ট থানায় মামলা করে ভুক্তভোগীর পরিবার। মামলায় ধর্ষণের অপরাধে মৃত্যুদন্ড, অপহরণের ঘটনায় যাবজ্জীবন এবং লাশ গুমের ঘটনায় সাত বছরের কারাদন্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে আদালত। এছাড়া, আসামির সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে দেড় লাখ টাকা ভিকটিমের পরিবারকে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

এদিকে, খাগড়াছড়ির গুইমারায় স্বামী হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে স্ত্রীসহ পাঁচজনকে।

খাগড়াছড়ির গুইমারায় পরকীয়ার জেরে প্রবাস ফেরত স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী রাবেয়া বেগমসহ পাঁচজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত। একই সাথে আদালত প্রত্যেক আসামিকে পাঁচ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে খাগড়াছড়ি জেলা ও দায়রা জজ রেজা মো. আলমগীর হাসানের আদালত এ রায় দেন।

সাজাপ্রাপ্ত অপর আসামীরা হলেন রামগড় চৌধুরী পাড়ার মোঃ মানিক মিয়ার ছেলে মোঃ সাইফুল ইসলাম (২৪), একই এলাকার মৃত আব্দুল মালেক এর ছেলে মোঃ ফিরোজ (২৮), গুইমারা উপজেলার রেনুছড়া এলাকার শাহ আলমের ছেলে মোঃ আবুল কালাম (২২) এবং একই এলাকার আবুল হোসেন এর ছেলে মোঃ আবুল আসাদ ওরফে মিঠু (২০)। দন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে আবুল আসাদ ওরফে মিঠু ছাড়া অন্য আসামিরা খাগড়াছড়ি জেলা কারাগারে রয়েছে।

খাগড়াছড়ির পাবলিক প্রসিকিউটর বিধান কানুনগো জানান, ২০১৬ সালে প্রবাসী মমিনুল হকের স্ত্রী রাবেয়া বেগম পরকিয়ার জেরে ভাড়াটিয়া খুনী দিয়ে স্বামী মমিনুল হককে হত্যা করে।

You may also like

সিএমপি’র ৫ থানার ওসি বদলি

নির্বাচন কমিশন ঢাকার একটি চিঠির আলোকে সিএমপির পাঁচ