চার সতীনের সম্প্রীতির অনন্য দৃষ্টান্ত

এক স্ত্রীকে নির্বাচনে জেতাতে অন্য দুই স্ত্রীকে নিয়ে মাঠে তৎপর এক স্বামী। আর সরকারি চাকরির কারনে আরেক স্ত্রী মাঠে না থাকলেও রয়েছে আর্থিক সহযোগিতা। সাথে আছেন চার স্ত্রীর সন্তানরাও।

এক সতীনের জন্য বাকি তিন সতীনের এমন ভূমিকা বগুড়ার শিবগঞ্জ পৌর নির্বাচনকে দিয়েছে ভিন্ন মাত্রা। কাউন্সিলর প্রার্থী মাজেদা বেগমকে জয়ী করতে অপর দুই স্ত্রী রেনু বেগম ও মিনু বেগমকে নিয়ে দিনরাত ভোটারদের দুয়ারে-দুয়ারে স্বামী প্রাইমারি স্কুলের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আব্দুস সামাদ।

বগুড়ার শিবগঞ্জ পৌরসভার বন্তেঘেরী মহল্লার অধিবাসী আব্দুস সামাদের তৃতীয় স্ত্রী মাজেদা এবারও পৌর নির্বাচনে ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী। প্রতিদিন স্বামী আর স্বামীর অপর দুই স্ত্রীকে নিয়ে নিয়মিত বের হন নির্বাচনী প্রচারে। আনারস প্রতীকের মাজেদা বেগম বর্তমানেও ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের দায়িত্ব পালন করছেন। গেলবারও জিতেছেন বিপুল ভোটে। এবারও জয়ের জন্য আশাবাদী তিনি।

মাজেদা বেগমের নির্বাচনী জনসংযোগে অংশ নেয়া অন্য দুই স্ত্রী জানিয়েছেন, তাদের হাঁড়ি- বাড়ি আলাদা হলেও সবাই আপন বোনের মতো। কেবল ভোট নয়, সুখে-দুঃখে থাকেন একে অন্যের পাশে। বড় জন সরকারি চাকরির কারণে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে না পারলেও রয়েছে তার দোয়া, সমর্থন এবং সহযোগিতা।

তাদের তিন সতীনের প্রচার-প্রচারণা ভোটারদের মধ্যে আলাদা উৎসাহ এনে দিয়েছে। সব সমস্যাকে মিলেমিশে মানিয়ে চলার এই দৃষ্টান্ত স্থাপন করায় ভোটাররাও খুশি। গতবারও একই কৌশলে নির্বাচনী প্রচার চালিয়ে ভোটারদের মন জয় করেছিলেন মাজেদা। গেলোবার তার কাছে হেরে যাওয়া দুই প্রার্থী চশমা মার্কার মিনারা বেগম ও জবাফুল মার্কার মিনেরা বেগম এবারও তার প্রতিদ্বন্দ্বী। তারাও এবার জয়ের ব্যাপারে আশাবাদি।

শিবগঞ্জ পৌরসভায় ভোট ৩০ জানুয়ারি। ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের নারী সংরক্ষিত এই আসনে মোট ভোটার ৫ হাজার ৪শ’ ৯৫ জন। কার ভাগ্যে আছে বিজয়ের মালা তা দেখার অপেক্ষায় পৌরবাসী।

You may also like

আইজিপি’র সাথে বিএনপির বৈঠক

পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদের সাথে বৈঠক করেছেন বাংলাদেশ