কমছেই না চালের বাজারে অস্থিরতা

কমছেই না চালের বাজারে অস্থিরতা। পাইকাররা দাবি করেছেন কেজি প্রতি চালের দাম ৩ থেকে ৮ টাকা কমেছে। যদিও ভিন্ন, বাজার পরিস্থিতি। চাল নিয়ে চালবাজির জন্য যথারীতি মিলার ও মজুতদারিকে দায়ী করছেন তারা।

অন্যদিকে বিশেষজ্ঞদের মতে, হাওরে বন্যা, গুজব, মনিটরিংয়ের অভাব আর সরকারের সিদ্ধান্তহীনতায় লাগাম হারানো চালের বাজারের পাগলা ঘোড়া বশে আসবে কবে আর কিভাবে – তা জানে না কেউ।

প্রতিদিনকার অপরিহার্য খাদ্য উপাদান চাল। কিন্তু গেল কয়েক মাস ধরে মানুষের দম প্রায় বন্ধ করে দিয়েছে অস্থির চালের বাজার। ক্যাটাগরি ভেদে কেজি প্রতি চালের দাম বেড়েছে ১২ টাকা পর্যন্ত।

চাল আমদানি, শুল্ক কমানো ও সরকারের নজরদারির কিছুটা প্রভাব পড়লেও খুচরা বাজারে এখনো কেজি প্রতি মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৫০ টাকায়। যেখানে প্রতি কেজি ৪২ টাকা করে বিক্রির দাবি করেছেন পাইকাররা। আর চিকন চাল বিক্রি হচ্ছে পাইকারিতে ক্যাটাগরি ভেদে ৫৮ কিংবা ৫৯ টাকায়। যা খুচরা বাজারে ৫/ ৭ টাকা বেশি।

যদিও ক্রেতারা বলছেন, চাল নিয়ে চালবাজি চলছেই। পাশাপাশি দোকানে ভিন্ন দামে বিক্রি করছেন অসাধু ব্যবসায়ীরা। এদিকে, বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেরিতে হলেও চাল আমদানির সরকারি সিদ্ধান্ত ও আমদানি শুল্ক কমানোয় কিছুটা ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে। তবে এখনো পরিস্থিতি নাজুক। বাজার নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রশাসনের কড়া নজরদারি দরকার বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

You may also like

এশিয়া কাপের অঘোষিত সেমিফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ

আফগানিস্তানকে ছিটকে দিয়ে এশিয়া কাপের অঘোষিত সেমিফাইনালে উঠেছে