সীমিত আকারে চালু হয়েছে বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানা

সীমিত আকারে চট্টগ্রাম, গাজীপুর, আশুলিয়া ও সাভারে চালু হয়েছে বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানা। লকডাউনের মধ্যেই শ্রমিকরা কাজে ফেরায় স্থানীয়দের অনেকেই আতঙ্কে রয়েছেন। সকালে খুলে দেয়া হয় শিল্পাঞ্চল সাভার ও আশুলিয়ার অধিকাংশ পোশাক তৈরির কারাখানা। দূরত্ব মেনেই এসব কারখানায় শ্রমিকরা কাজ করবে, নিশ্চিত করেছে মালিকপক্ষ। শ্রমিকদের করোনা পরীক্ষাসহ অস্থায়ী আবাসিক ব্যবস্থার পরামর্শ দিয়েছেন শ্রমিক নেতারা। অন্যদিকে ডিইপিজেডের দু’টি জোনেরও কিছু কারখানায় কাজ চলছে। চট্টগ্রামের তিনটি ইপিজেডের একশ’ ১০টি কারখানা সীমিত আকারে খোলা হয়েছে।

চট্টগ্রাম ও কর্ণফুলী ইপিজেড এবং আনোয়ারার কোরিয়ান ইপিজেডের এই কারখানাগুলোতে কাজ চলছে। চালু হয়েছে বিজিএমইএ’র আওতাধীন বেশ কিছু কারখানাও। কর্তৃপক্ষের দাবি, তারা শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়েই কারখানা চালাবেন। তবে চলমান লকডাউনের মধ্যে কারখানা চালু হওয়ায় শঙ্কিত ওই এলাকার বাসিন্দারা। এদিকে, কারখানা খোলার নির্দেশে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে গাজীপুরের কর্মস্থলে ফিরছেন পোশাক শ্রমিকরা। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় নানা ঝক্কি পেরিয়ে কর্মস্থলে আসেন তারা।

You may also like

দেশে স্বাস্থ্যবিধি মানার প্রবণতা কমছে

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু না কমলেও দেশে স্বাস্থ্যবিধি