ভারতের বিকল্প ১২টি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু

ভারত রপ্তানি বন্ধের পর বিকল্প ১২টি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু করেছেন ব্যবসায়ীরা । মিয়ানমার ও পাকিস্তান থেকে আমদানি করা ১৭০ টন পেঁয়াজ খালাস হচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দরে। তবে গত একমাসে অনুমতিপত্র নেয়া দেড় লাখ মেট্রিকটন পেঁয়াজ আমদানি হলে বাজারে স্থিতিশীলতা ফিরে আসবে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর ভারতের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণায় দেশের বাজারে অস্থিরতা তৈরী হয়। ফলে বাজারে পেঁয়াজের কেজিপ্রতি দাম দ্বি-গুণ বেড়ে যায়। এই অবস্থায় ব্যবসায়ীরা বিকল্প ১২টি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমাদানির উদ্যেগ নেয়। এ পর্যন্ত চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্রে থেকে এক লাখ ৫১ হাজার মেট্রিকটন পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এসব পেঁয়াজ আসতে শুরু করেছে চট্টগ্রাম বন্দরে।

দেশে কৃষিজাত পণ্য আমদানি ও আমদানির পর ছাড়ের জন্য অনুমতিপত্র নিতে হয় উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্রের কাছ থেকে। পেঁয়াজ আমদানিতে দেশের চাহিদা বিবেচনায় দ্রুত ছাড়পত্র দেয়ার কথা বলেছেন, দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা । পাইপ লাইনে থাকা আমদানিকারকের পেঁয়াজ দ্রুত দেশে ঢুকবে আশা ব্যবসায়ীদের। অনুমতি নেয়া দেড়লাখ মেট্রিকটনসহ পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত থাকলে পেঁয়াজের দাম সহনীয় পর্যায়ে আসবে মনে করেন ব্যবসায়ীরা।

 

You may also like

গোল্ডেন মনিরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি এলাকাবাসির

গোল্ডেন মনিরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও তার বাবার নামে