সমাবেশের অনুমতি না দেয়ায় বিভিন্ন জায়গায় বিএনপির বিক্ষোভ, পুলিশের বাধা, নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের অভিযোগ রিজভীর

সমাবেশের অনুমতি না দেয়ায় বিভিন্ন জায়গায় বিএনপির বিক্ষোভ, পুলিশের বাধা, নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের অভিযোগ রিজভীর

সমাবেশ করতে না দেয়ার প্রতিবাদে বিএনপির ডাকা বিক্ষোভ কর্মসূচিতে হামলা চালিয়ে পুলিশ নেতাকর্মীদের আহত ও গ্রেপ্তার করেছে, অভিযোগ দলটির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবীর রিজভীর।

বিকালে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে রিজভী জানান, ঢাকার মিরপুর, পটুয়াখালী, গাজীপুরসহ বিভিন্ন জায়গায়  মিছিলে বাধা দেয় পুলিশ। এ সময় পুলিশের বেধড়ক লাঠিচার্জে অনেক নেতাকর্মী আহত হয়। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, বিক্ষোভ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় বাড়ি বাড়ি হানা দিয়ে নেতাকর্মীদের আটক করে। পাঁচ জানুয়ারি বরিশালে বিএনপি কার্যালয়ে মহিলা নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ব্যবস্থা নেয়ার কথা বললেও অপরাধীরা এখনো বীরদর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী আহমেদ।

বিকালে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে রিজভী জানান, ঢাকার মিরপুর, পটুয়াখালী, গাজীপুরসহ বিভিন্ন জায়গায়  মিছিলে বাধা দেয় পুলিশ। এ সময় পুলিশের বেধড়ক লাঠিচার্জে অনেক নেতাকর্মী আহত হয়। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, বিক্ষোভ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় বাড়ি বাড়ি হানা দিয়ে নেতাকর্মীদের আটক করে। পাঁচ জানুয়ারি বরিশালে বিএনপি কার্যালয়ে মহিলা নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ব্যবস্থা নেয়ার কথা বললেও অপরাধীরা এখনো বীরদর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী আহমেদ।

বরিশালে বিএনপির কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে পুলিশের উপর ক্ষিপ্ত হয় বিএনপি নেতা-কর্মীরা। এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ কর্মীরা পুলিশের দিকে তেড়ে গেলে সিনিয়র নেতারা তাদের নিয়ন্ত্রণ করে। পরে শান্তিপূর্নভাবেই সমাবেশ করেন নেতারা। এসময় বক্তারা ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবসে বিএনপির ওপর আওয়ামী লীগের হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

চট্টগ্রামে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে মহানগর বিএনপি। বিকেলে নগরীর দলীয় কার্যালয়ে কেন্দ্র ঘোষিত ও কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, সরকার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে না দিয়ে আবারও তারা গনতন্ত্র ও বাক স্বাধীনতায় বিশ্বাস করেনা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপির উদ্যোগে একটি বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ হয়েছে। পাওয়ার হাউজ রোড থেকে মিছিলটি প্রধান সড়কে এগিয়ে গেলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে সেখানেই সমাবেশ করেন তারা। সভায় বক্তারা সারা দেশে দলীয় নেতা কর্মীদের উপর পুলিশের নির্যাতনের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।
এদিকে, খাগড়াছড়িতে পুলিশের বাধায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল পন্ড হয়ে গেছে। পরে দলীয় কার্যালয়ের সামনেই সমাবেশ করে তারা।

ঝিনাইদহে জেলা বিএনপি শহরের কেপিবসু সড়ক থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে পুলিশের বাধায় সেখানেই তারা সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে।

গাইবান্ধায় জেলা বিএনপির উদ্যাগে একটি বিক্ষোভ মিছিল দলীয় কার্যালয় হতে বের হয়ে শহরের প্রধান সড়ক ঘুরে আসে। পরে একটি সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে।
দুপুরে বগুড়া জেলা বিএনপি নবাববাড়ি সড়কে দলের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। সভায় বক্তারা সরকারের স্বৈরাচারী আচরণের তীব্র সমালোচনা করেন।

তবে, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে রংপুর, সিলেট ও রাজশাহীতে বিএনপির কোন কর্মসূচি দেখা যায়নি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও

১৪ মার্চ, মঙ্গলবার ২০১৭

বেলা ১২:০৫ বাংলা সিনেমা বিকেল ৫:২৫ পরীক্ষার প্রস’তিমূলক