গাইবান্ধায় জিম্মিকরে ছাত্রীকে ধর্ষণ, ধর্ষক শিক্ষক আটক

সাজেশন দেয়ার নামে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে নবম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ধর্ষণের পর ধারণ করা ভিডিও ফাঁসের ভয় দেখিয়ে প্রায়ই ছাত্রীটিকে ধর্ষণ করে আসছিল ওই শিক্ষক। এ ঘটনায় প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার মেলেনি।

গতকাল মেয়েটির বাবা মামলা করার পর আজ অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সুন্দরগঞ্জের চন্ডিপুর এটিএন বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর মেধাবী এই ছাত্রীর অভিযোগ, এ বছরের ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি স্কুল ছুটির পর সে সাজেশন আনতে যায় আইসিটি শিক্ষক সাজ্জাদুল করিম টিপু’র কাছে।

প্রকৃতির ডাকে ওই ছাত্রী বাথরুমে গেলে শিক্ষক টিপু বাথরুমে ঢুকে ওই ছাত্রীকে জোর করে ধর্ষণ করে এবং ভিডিও ধারণ করে। সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ফাঁস করার ভয় দেখিয়ে ওই শিক্ষক প্রায়ই মেয়েটিকে ধর্ষণ এবং তা ভিডিও করে আসছিল। ঘটনাটি জানাজানি হলে গত ২৯ নভেম্বর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন মেয়েটির বাবা।

প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক রাজা ধর্ষক শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো ছাড়পত্র দিয়ে নির্যাতিত ছাত্রীটিকে বিদ্যালয় থেকে বের করে দেন। এদিকে, এরপর ওই শিক্ষকের হুমকিতে ছাত্রীটির পরিবার এখন এলাকা ছাড়া। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী স্কুলে তালা ঝুলিয়ে দেয়। রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে সুন্দরগঞ্জ পৌর এলাকা থেকে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে। বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রধান শিক্ষককে পাওয়া যায়নি।

You may also like

বাবা-মার পাশে কবি আল মাহমুদের দাফন

ব্রাক্ষণবাড়িয়া শহরের মৌড়াইলে পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার কবরের পাশে