দুর্নীতি কেলেংকারীতে দুদক পরিচালক এনামুল বাসির সাময়িক বরখাস্ত

পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমান মিজানের কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার অভিযোগে গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশে দুর্নীতি দমন কমিশনের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসিরকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে সংস্থাটি। দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, ঘুষের অভিযোগের তদন্ত শেষে আরো শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে পরিচালক খন্দকার বাসিরের ঘুষ নেয়া সংক্রান্ত অভিযোগের কারণে দুদক বিব্রত নয় বলেও জানান তিনি। পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমান মিজানের কাছ থেকে দুদক পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসিরের ৪০ লাখ টাকা ঘুষ নেয়ার এই অডিওটি একটি বেসরকারী টিভি চ্যানেলে প্রকাশের পরপরই এ নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয় সংস্থাটিতে। অডিওতে নানা সময়ে ঘুষ নেয়ার পাশাপাশি নিজের ছেলেকে স্কুলে আনা নেয়া করার জন্য একটি গাড়িরও আবদার করেন দুদক পরিচালক।

এমনকি দুদক পরিচালক বাসির ডিআইজি মিজানের স্ত্রীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে তার বিরুদ্ধে চলা অনুসন্ধান প্রতিবেদনের তথ্যও ফাঁস করেছেন বলে অভিযোগ। এসব বিষয় আমলে নিয়ে পরিচালক এনামুল বাসিরের ঘুষ নেয়ার অভিযোগ তদন্তে রবিবার দুদক সচিব দিলওয়ার বখতের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠণ করে দুদক। সোমবার এই কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে এনামুল বাসিরকে সাময়িক বরখাস্ত করে সংস্থাটি। বিকেলে দুদক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। দুদক চেয়ারম্যান জানান, একজন কর্মকর্তার দুর্নীতির দায় পুরো কমিশনে নেবে না। ডিআইজি মিজানের দুর্নীতি তদন্তে নতুন কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে বলেও জানান দুদক চেয়ারম্যান ।

 

You may also like

সড়ক দুর্ঘটনায় মাদারীপুর ও সাতক্ষীরায় তিনজন নিহত

সড়ক দুর্ঘটনায় মাদারীপুর ও সাতক্ষীরায় তিনজন নিহত হয়েছেন।