রিফাত হত্যার মুল হোতারা এখনও গ্রেফতার হয়নি

বরগুনায় রিফাত হত্যায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে দুই আসামী। অপর তিনজনকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। তবে, নৃশংস এ হত্যাকান্ডের মূল হোতারা আটক হয়নি এখনো। ক্ষমতাশীন দলের বর্তমান এমপি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের ছত্রছায়ায় তারা এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালাতো বলে অভিযোগ করেছেন খোদ স্থানীয় আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারাই। বরগুনায় রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার পাঁচজনেক সোমবার বিকালে নেয়া হয় আদালতে। তাদের মধ্যে নাজমুল, সাইমুন এবং সাগরের রিমান্ড চায় পুলিশ। আদালত তাদের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। অন্য দুই আসামি অলিউল্লাহ অলি ও তানভীর হোসেনের জবানবন্দি রেকর্ড করা হয় আদালতে। তবে, নৃশংস এ হত্যাকান্ডের মূল হোতারা আটক হয়নি এখনো। নয়ন বন্ড কয়েকটি মাদক মামলার আসামী। এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ তার সন্ত্রাসী কার্যকলাপে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলে সুনাম দেবনাথ তাকে প্রশ্রয় দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে সন্ত্রাসীদের সাথে কোন সম্পর্ক নেই দাবী করেছেন এমপি পুত্র সুনাম দেবনাথ। বলেছেন, ২ ও ৩ নম্বর আসামী রিফাত ও রিশান ফরাজী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের ভায়রার ছেলে। বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক, বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগ এদিকে, গত শুক্রবার বরগুনা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে ঘাতকদের প্রশ্রয় দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন। অপরাধী যেই হোক তাদের আইনের আওতায় আনার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন বরগুনার পুলিশ সুপার। রিফাতের হত্যায় জড়িত সবাইকে দ্রুত বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বরগুনা প্রেসক্লাব চত্বরে মানববন্ধন করেছে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন। এতে বক্তারা আসামীদের ফাঁসির দাবি করেন।

You may also like

১৮ সেপ্টেম্বর, বুধবার ২০১৯

বেলা ১২:০৫ : বাংলা সিনেমা বিকেল ৫:২০ :