কমছেই না ধর্ষণ, অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধেও

আজও দেশের তিন জেলায় ধর্ষনের শিকার হয়েছে চারজন। এর মধ্যে তৃতীয় শ্রেনীর স্কুলছাত্রী ধর্ষিত হয়েছে চাচাতো ভাইয়ের হাতে, পুলিশ কনস্টেবল ধর্ষণ করেছে এক কলেজ ছাত্রীকে। অন্যদিকে, গণধর্ষনের শিকার হয়েছে ৩৫ বছরের বিধবা নারী। সকাল সাড়ে সাতটায় সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে খাবারের প্রলোভন দেখিয়ে চাচাতো ভাই সাজু শিশুটিকে ধর্ষন করে।

এরপর শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদিকে, আবু বক্কর সিদ্দিক নামে রংপুরের এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে গাইবান্ধায় এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদি হয়ে আবু বক্কর সিদ্দিক ও তার সহযোগী আমিনুলকে আসামী করে গাইবান্ধা সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আসামীদের গ্রেফতারের জন্য রংপুর পুলিশ অফিসে বার্তা পাঠানো হয়েছে বলে জানায় পুলিশ। অন্যদিকে, ভোলায় অষ্টম শ্রেনীর মাদ্রাসা ছাত্রীকে বাড়ি রেখে তার বাবা নদীতে মাছ শিকারে গিয়েছিলেন।

এ সুযোগে একই এলাকার বখাটে সোহাগ ঐ ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ছাত্রীর বাবা বোরহানউদ্দিন থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। অন্যদিকে, ভোলায় ৩৫ বছরের এক বিধবা নারীকে পাশ্ববর্তী গরুর খামারে নিয়ে হাত পা বেঁধে গণধর্ষণ করেছে স্থানীয় মাদকসেবী মাকসুদ, ছালাউদ্দিন ও আলমগীর। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

You may also like

ওয়াশিংটনসহ ২৫টি শহরে কারফিউ

কারফিউ জারি আর ন্যাশনাল গার্ড সদস্যদের মোতায়নের পর