ঢাবির ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় বাবার মামলা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ধর্ষনের ঘটনায় ফুঁসে উঠেছে ক্যাম্পাস। প্রচলিত আইন পাল্টে সকল ধর্ষন মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা। আর পুলিশকে দোষীদের আটক করে বিচারের আওতায় আনার অনুরোধ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি। এদিকে, ঘটনার বিচার চেয়ে রাজধানীর কুর্মিটোলায় ধর্ষিত ছাত্রীর বাবা মামলা করেছেন ক্যান্টনমেন্ট থানায়।

ধর্ষণের শিকার শিক্ষার্থীর সহপাঠীরা জানান, রবিবার ক্লাস শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে কুর্মিটোলায় নামেন মেয়েটি। বাস স্ট্যান্ডে নেমে কিছুদুর হাঁটলে হঠাৎ অজ্ঞাত এক ব্যক্তি মেয়েটি মুখ চেপে ধরে। এতে তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। রাত দশটার দিকে রাস্তার পাশের একটি ঝোপে বিবস্ত্র অবস্থায় জ্ঞান ফেরে তার। রাত ১২টার দিকে তাকে ভর্তি করা হয় ঢাকা মেডিকেলের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে।

খবর পেয়ে ঢাকা মেডিকেলে ঐ শিক্ষার্থীকে দেখতে যান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর এম আখতারুজ্জামান। পরে তিনি সাংবাদিকদের জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তার অভিভাকত্ব নিয়েছে, ন্যায় বিচারের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন প্রয়োজনীয় সবই করবে।

এদিকে, সহপাঠীর এমন ঘটনায় ক্ষুব্ধ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠন রাজু ভাস্কর্যসহ বেশ কয়েকটি জায়গায় ধর্ষনের বিচার চেয়ে আন্দোলনে নামে। তারা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে দাবি জানান, সিসিটিভি ফুটেজ দেখে দ্রুত ধর্ষকদের গ্রেফতারের।

এদিকে, কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডের পাশে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ ও গোয়েন্দা বিভাগ। সেখান থেকে মেয়েটির ভ্যানিটি ব্যাগ, বই, ইনহেলার এবং একটি জেন্টস ঘড়ি ও প্যান্ট উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশের ধারনা, ধর্ষকরা নেশা করছিল সেখানে।

You may also like

তাড়ানো হবে এক কোটি অবৈধ বাংলাদেশিকে: দিলিপ ঘোষ

অন্তত এক কোটি বাংলাদেশি ভারতে অবৈধভাবে বসবাস করছে