ইউএনও’র ওপর হামলাকারীদের যুবলীগ থেকে বহিষ্কার

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তাঁর বাবার ওপর হামলায় সম্মৃক্ততার কথা স্বীকার করেছে তিনজন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়েছে ৬ জনকে। গ্রেফতার উপেজলা যুবলীগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুদ রানা ও যুবলীগ সদস্য আসাদুল হককে জিজ্ঞাসাবাদ করছে র‌্যাব । সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে অভিযুক্তদের।

বুধবার গভীর রাতে সরকারি বাসায় ঢুকে কুপিয়ে ও মাথায় আঘাত করে ঘোড়াঘাটের ইউএনও ওয়াহিদা খানমকে মারাত্মকভাবে জখম করে দুই দুর্বৃত্ত। আহত হন তার বাবা ওমর শেখও। বৃহস্পতিবার রাতে ঘোড়াঘাট থানায় অজ্ঞাত চার/পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেন ইউএনও ওয়াহিদার বড় ভাই।

এরপর শুক্রবার ভোরে র‌্যাব ও পুলিশের যৌথ অভিযানে আটক করা হয় জাহাঙ্গীর হোসেন ও আসাদুল ইসলামকে। জাহাঙ্গীর ২০১৭ সাল থেকে ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করছেন। শুক্রবার দুপুরে আটক করা হয় ঘোড়াঘাটের ৩ নম্বর ওয়ার্ড সিংড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুদ রানাকে ।

পরে নবীউল ইসলাম নামে এক রং মিস্ত্রিকে আটক করা হয়। তাঁর কাছ থেকে একটি হাতুড়ি জব্দ করা হয়েছে। আটক করা হয়েছে সুইপার শান্তু রায়কেও। অভিযুক্ত যুবলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে নিজ এলাকায় রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে সন্ত্রাস ও মাদকব্যবসার একাধিক মামলা রয়েছে। তবে, কী কারণে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের ওরপ হামলা করা হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়।

You may also like

উপ-নির্বাচনের ফলাফল বাতিলের দাবিতে বিএনপির বিক্ষোভ

উপনির্বাচনের ফলাফল বাতিল করে পুন: নির্বাচনের দাবিতে রাজধানীতে