ছোটভাই-বড় ভাই দ্বন্দ্বে ধারালো ছুঁড়ি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা

ছোটভাই-বড় ভাই দ্বন্দ্বে ধারালো ছুঁড়ি দিয়ে কুপিয়ে আহত করা হয় কিশোর জব্বারকে। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একদিন পর মারা যায় সে। পুলিশ দুই আসামিকে গ্রেফতার করলেও পরিবারের দাবি, চার আসামি এখনো অধরা। যারা হুমকি দিচ্ছে মামলা তুলে নিতে। বিস্তারিত জানাচ্ছেন জিয়া খান। সিসিটিভির ফুটেজ। চার থেকে পাঁচজন কিশোর এক কিশোরকে মারধর করছে। সিসিটিভির ফুটেজ তাই বলছে। মারধরের এক পর্যায়ে ইমন নামে এক কিশোর জব্বারকে ছুঁরি মারে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় পর দিন মারা যায় জব্বার।

রাজধানীর দক্ষিণ রাজারবাগে গেলো সাত সেপ্টেম্বরের রাতে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, দ্বন্দ্বে জড়ানো কিশোররা সবাই সমবয়সী। একসাথে চলতো তারা। সামান্য বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে ঘটে যায় খুনের ঘটনা। ঘটনার দুদিন পর ইমনকে আসামি করে মামলা করা হয় সবুজবাগ থানায়। কিন্তু বাদীর অভিযোগ, ইমন ছাড়াও আরো চারজন হত্যায় জড়িত থাকলেও তাদের নামে মামলা নেয়নি পুলিশ। কিশোর গ্যাং কালচার এই মায়ের বুক থেকে কেড়ে নিয়েছে সন্তানকে। যার বিচার চান তিনি। জব্বারের মতো আরো কতো কিশোর যে গ্যাং কালচারের বলি হচ্ছে তার হিসেবে কে রাখছে…? জিয়া খান, বাংলাভিশন, ঢাকা।

You may also like

গোল্ডেন মনিরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি এলাকাবাসির

গোল্ডেন মনিরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও তার বাবার নামে