সয়াবিন তেল লিটারে ১০-১১ টাকা কমলেও খুচরা বাজারে তার তেমন প্রভাব নেই

সয়াবিন তেল লিটারে ১০-১১ টাকা কমলেও খুচরা বাজারে তার তেমন প্রভাব নেই

গত দুই মাসের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ১০ থেকে ১১ টাকা কমলেও খুচরা বাজারে তার তেমন প্রভাব নেই। বিশেষ করে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম কমানো হয়নি এক টাকাও। এছাড়া, রাজধানীর ভোজ্য তেলের পাইকারি বাজার মৌলভীবাজারের সাথে খুচরা বাজারের বেশ বড় ধরনের পার্থক্য রয়েছে।

দেশের ভোজ্য তেলের চাহিদার ৯০ ভাগই পুরণ হয় বিদেশ থেকে আমদানির মাধ্যমে। তাই স্বাভাবিকভাবেই আর্ন্তজাতিক বাজারে ভোজ্য তেলের দামের ওপর নির্ভর করে দেশের বাজার। এমন বাস্তবতায় গত দুই মাস আগে বিক্রি হওয়া তিন হাজার ৪০০ টাকায় প্রতি মন খোলা সয়াবিন, এখন বিক্রি হচ্ছে দুই হাজার ৯৫০ টাকায়। সে হিসেবে লিটারে দাম কমেছে ১১ টাকা মতো। আর দুই হাজার ৮০০ টাকা মনের পাম ওয়েলের দাম এখন দুই হাজার ৫৭০ টাকার কাছাকাছি।

রাজধানীর খুচরা বিক্রেতারা, বাজার ভেদে পাইকারি বাজার চেয়ে ১৫ টাকারও বেশি দামে খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি করছেন। দাম কমেনি তীর, রুপচাঁদা, ফ্রেসসহ বিভিন্ন কোম্পানির বোতলজাত তেলেরও। বিভিন্ন ব্যান্ডের প্রতি পাঁচ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৪৯০ টাকা থেকে ৫১৫ টাকার মধ্যে।

এদিকে, দেশের সবচে বড় পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ীরা বলছেন, দ্রুত সয়াবিনে দাম কমে যাওয়ায় লোকসানের মুখে পড়েছেন তারা। এমনকি ভোজ্য তেলের দাম না কমার পেছনে মিল মালিকদের স্বেচ্ছাচারিতাকেই দায়ি করেছেন, খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও

দিনাজপুরে জেএমবির দুই সদস্য গ্রেফতার

দিনাজপুরের রানীগঞ্জ থেকে জেএমবির সারওয়ার-তামিম গ্রুপের সক্রিয় দুই