বাজেট ঘোষণা আজ, কর না বাড়ানোর আশ্বাস অর্থমন্ত্রীর

জাতীয় সংসদে আজ উত্থাপন হবে দেশ পরিচালনার নতুন বাজেট। চার লাখ ৬৪ হাজার কোটি টাকার সম্ভাব্য এ বাজেট দিয়ে ভোটারদের তুষ্ট করতে চান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এটি হবে তার ব্যক্তিগত ১২তম এবং টানা ১০বার বাজেট পেশের দৃষ্টান্ত। নতুন বাজেটে প্রবৃদ্ধির টার্গেট ধরা হচ্ছে সাত দশমিক আট শতাংশ। এবার বাজেটের আকার বাড়লেও নতুন কর তেমন বাড়ছে না। তাই ভোক্তাদের ওপর চাপ বাড়বে না বলে আশ্বস্ত করেছেন অর্থমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় আগামী অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। জাতীয় নির্বাচনের আগমুহূর্তে বর্তমান সরকারের এ মেয়াদে এটাই শেষ বাজেট হওয়ায় সংস্কারমূলক কাজে হাত দিচ্ছে না সরকার। চার লাখ ৬০ হাজার কোটি টাকার আশপাশে থাকা এ বাজেটে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি-এডিপি’র জন্য বরাদ্দ রয়েছে এক লাখ ৮১ হাজার কোটি টাকা।

এ বাজেটে রাজস্ব আয়ের টার্গেট ধরা হতে পারে তিন লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকা। যার প্রায় তিন লাখ কোটিই আয় করতে হবে এনবিআরকে। প্রায় এক লাখ ২৭ হাজার কোটি টাকার ঘাটতি মেটাতে ব্যাংকিং খাত থেকে ৫৯ হাজার কোটি এবং সঞ্চয়পত্র থেকে ২৯ হাজার কোটি টাকা ধার নেবে সরকার। সরকারি ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি মেটাতে এবারও বাজেটে থাকছে দুই হাজার কোটি টাকার বরাদ্দ।

নতুন খাত রোহিঙ্গা পুনর্বাসনে বরাদ্দ হতে যাচ্ছে চারশ’ কোটি টাকা। বড় এ বাজেটের খরচ যোগাতে রাজস্ব আয়ের টার্গেট বাড়ায় এবারও আয়ের মূল হাতিয়ার হিসেবে থাকছে ভ্যাট। তবে, ভ্যাটের স্তর এবার কমিয়ে আনা হচ্ছে ৯ থেকে ৫টিতে। যেসব প্রতিষ্ঠানের কর ৩৭ শতাংশের কম তাদের করপোরেট করহার থাকছে আগের মতো। নতুন কর এবার না বাড়ায় জিনিসপত্রের দাম বাড়বে না, আশ্বস্ত করেছেন অর্থমন্ত্রী। তাহলে কী আবারও ঘাটতি পড়বে রাজস্ব আদায়ে? স্বাধীন হওয়ার পর এ পর্যন্ত দেশে বাজেট ঘোষণা হয়েছে ৪৭ বার। যার তিনটি দেয়া হয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে।

এ পর্যন্ত মোট ১২ জন অর্থমন্ত্রী বা উপদেষ্টা বাজেট পেশ করেন। দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ১২ বার বাজেট দেন বিএনপির সময়কার অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী এম সাইফুর রহমান। তিনি রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সময় ২ বার এবং বিএনপির দুই মেয়াদে ১০ বার বাজেট পেশ করেন।

এবার বাজেট উপস্থাপনের মধ্যদিয়ে এম সাইফুর রহমানের রেকর্ড ছুঁতে যাচ্ছেন এক সময়ের আমলা, পরে রাজনীতিতে আসা বর্তমান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। তিনি এরশাদ সরকারের সময় দু’বার বাজেট দেন। মহাজোট সরকারের দুই মেয়াদে টানা ১০ বার বাজেট দিয়ে অনন্য নজির স্থাপন করছেন তিনি।

বাংলাদেশের প্রথম বাজেট উত্থাপন হয় ১৯৭২ সালের ৩০ শে জুন। অর্থমন্ত্রী, স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়কার প্রধানমন্ত্রী এম তাজউদ্দিন আহমেদ ৭২ থেকে ৭৫ পর্যন্ত তিনটি বাজেট দেন। প্রথম বাজেটের আকার মাত্র ৭৫২ কোটি টাকা হলেও এবার সেই বাজেটের আকার ছাড়াচ্ছে সাড়ে চার লাখ কোটি টাকা।

You may also like

ঐক্য প্রক্রিয়ার সমাবেশে বিএনপি নেতারা

দেশের মানুষ ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত, আর তা পুনরুদ্ধারে