কষ্টের ধান লোকসানে বেচতে বুক ফাটছে দিনাজপুর ও নাটোরের কৃষকদের

কষ্টের ধান লোকসানে বেচতে বুক ফাটছে দিনাজপুর ও নাটোরের কৃষকদের। বাম্পার ফলনেও উৎপাদন খরচ উঠছে না তাদের।শ্রমিক মুজুরি বেশি আর ধানের দর কম থাকায় লোকসান গুনতে হচ্ছে তাদের। বেশি বিপাকে দাদন নেয়া বর্গা চাষিরা।

শস্য ভাণ্ডার খ্যাত উত্তরের জেলা দিনাজপুরে এবার বোরো চাষ হয়েছে এক লাখ ৭৪ হাজার হেক্টর জমিতে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় ফলনও হয়েছে ভালো। এক বিঘা জমিতে ধান লাগানো থেকে ঘরে তোলা পর্যন্ত খরচ পড়েছে ১৭ থেকে ১৮ হাজার টাকা। কিন্তু বিক্রিতে লোকসান গুনতে হচ্ছে এক থেকে দেড় হাজার টাকা।

কৃষি বিভাগ বলছে, আগামীতে ভর্তুকি দিয়ে প্রযুক্তি ব্যবহারে সহযোগিতা করবে সরকার। নাটোরে এক মণ ধানের দামের চেয়ে একজন শ্রমিকের মজুরি বেশি। ধানের দাম না পেয়ে হতাশ চাষীরা। দেনা পরিশোধ করতে বাধ্য হয়ে আবাদি জমি লিজ দিচ্ছে অনেকে।

কৃষকদের বাঁচাতে ধানের দাম বাড়ানোর দাবির সাথে একমত কৃষি কর্মকর্তারাও। লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি ধান উৎপাদন নিয়ে বিপাকে কৃষক। ন্যায্য দাম পেতে সরকারের দিকে তাকিয়ে তারা।

বাংলাভিশন, নিউজ ডেস্ক…

You may also like

বাউল গান ও মানবতার সাধক কন্ঠশিল্পী আশিক

কন্ঠশিল্পী আশিক, চ্যানেল আই সেরা কন্ঠ প্রতিযোগীতার মাধ্যমে