যেসব খাতে দুর্নীতির সুযোগ বেশি সেগুলোই প্রাধান্য পেয়েছে এডিপিতে

সদ্য অনুমোদিত নতুন বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসুচিতেও স্বাস্থ্য-শিক্ষার মতো সাধারণ মানুষের মৌলিক প্রয়োজনীয় খাতগুলোকে গুরুত্ব দেয়া হয়নি বলে অভিমত বিশেষজ্ঞদের। তারা মনে করেন, পরিবহন, বিদ্যুৎ, পল্লী উন্নয়নসহ যেসব খাতে দুর্নীতির সুযোগ বেশি সেগুলোই প্রাধান্য পেয়েছে এডিপিতে। চলতি বছরের চাইতে ১৭ দশমিক এক আট শতাংশ বড় আকার দিয়ে অনুমোদন হয়েছে আগামী অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্সুচি-এডিপি। ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকার এই এডিপিতে সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ পরিবহণ খাতে – ৫২ হাজার ৮০৬ কোটি টাকা।

বিদ্যুৎ খাতে দেয়া হয়েছে ২৬ হাজার ১৭ কোটি। বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে পদ্মা সেতু ও পদ্মা রেল সেতু প্রকল্পেও। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মেগা প্রজেক্ট আর পরিবহন খাতের তুলনায় উল্লেখযোগ্য গুরুত্ব পায়নি স্বাস্থ্য, শিক্ষার মত মৌলিক বিষয় – যা সরাসরি সাধারণ মানুষের জীবনকে প্রভাবিত করে। অন্যদিকে, ক্রমাগত ঋণের বোঝা বাড়িয়ে এডিপি বড় করার এবং তার মানহীন বাস্তবায়নের মাধ্যমে দুর্নীতির দুয়ার খুলে দেয়ার সংস্কৃতি থেকে সরে আসার জোর তাগিদ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

 

You may also like

ভারতের সাথে সুসম্পর্কের কোনো টানাপোড়েন চায় না বাংলাদেশ: কাদের

ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধন বিলের বিষয়টি সরকার গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ