করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সংকটে দেশের ইজিবাইকের বাজার

করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়েছে দেশের ইজিবাইকের সবচেয়ে বড় মোকাম যশোরে। চীন থেকে আমদানি করা প্রতিটি ইজিবাইকের দাম বেড়েছে পাঁচ থেকে সাত হাজার টাকা। কয়েক দিনের ব্যবধানে বেড়েছে খুচরা যংন্ত্রাশ ও ব্যাটারির দামও। ব্যবসায়ীরা বলছেন, আরো ১৫-২০ দিন আমদানি বন্ধ থাকলে ভয়াবহ সংকটে পড়বে ইজিবাইকের বাজার। ২০০৭ সালে চীন থেকে সর্বপ্রথম ইজিবাইক আমদানি করে ছাড়া হয় যশোরের বাজারে। অল্পদিনের মধ্যে জনপ্রিয় পেয়ে ব্যবসাটি ছড়িয়ে যায় সারাদেশে। এখন দেশে প্রায় ১১ লাখ ইজিবাইক বিভিন্ন সড়কে চলাচল করছে। আর এ কাজে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে ১৫ লাখ লোকের।

প্রতি মাসে দেশের চাহিদা অনুযায়ী ইজিবাইকের ব্যাটারিসহ ১০০ কন্টিনার খুচরা যংন্ত্রাশ আমদনী হয় চীন থেকে। সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের কারণে সব ধরনের পণ্য আমদানি বন্ধ থাকায় যশোরের বাজারে এ খাতে দেখা দিয়েছে সংকট। ইজিবাইকের খুচরা যন্ত্রাংশের দাম বেড়ে যাওয়ায় গাড়ি মেরামত ও ব্যাটারি পাল্টাতে হিমসিম খাচ্ছে চালকরা। আমদানীকারকরা জানান, চীনে ব্যাংক ও কুরিয়ার সাভির্স বন্ধ থাকায় আসছে না ডকুমেন্ট। বন্দরে আটকা পড়েছে এলসির প্রায় চার হাজার ইজিবাইকের যন্ত্রাংশ । করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রনে দীর্ঘ সময় লাগলে ইজি বাইকের দাম দ্বিগুণ হওয়ার আশঙ্কা সংশ্লিষ্টদের।

You may also like

জেলায় জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনের সংখ্যা বাড়ছে

নোয়াখালীতে সর্দি-কাশি, জ্বর আক্রান্ত হয়ে এক যুবক মারা