সিলেট এমসি কলেজ এখন অপরাধীদের অভয়ারন্য

সিলেট এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে আগুন দেয়াসহ বেশ কয়েকটি হত্যাকান্ডের বিচার না হওয়ার ধারাবাহিকতায় গণধর্ষণের মতো ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করে সিলেটবাসী। বিচারহীনতা, রাজনৈতিক ছাত্রছায়া, ছাত্র সংসদের নির্বাচন না হওয়া আর কর্তৃপক্ষের তদারকির ঘাটতিতে বারবার অপরাধ ঘটছে বলে মনে করেন স্থানীয়রা।

আলোকিত মানুষ গড়ার সূতিকাগার সিলেট এমসি কলেজ। সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ছাড়াও ডজনখানেক মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী এ কলেজ থেকে পাস করে দেশ বিদেশে আলো ছড়িয়েছেন। একশ ২৮ বছরের এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার শিক্ষার্থী আলো ছড়ালেও গুটিকয়েক অপরাধির জন্য বারবার কলঙ্কিত হয়েছে ঐতিহ্যবাহী এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ২০১২ সালের ৯ জুলাই ছাত্রবাসে আগুন দেয়ার ঘটনায় বিচার হয় নি এখনো।

২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর খাদিজার উপর হামলা করে কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী বদরুল আলম। এ ঘটনায় তার সাজা হলেও এমসি কলেজ ও ছাত্রবাসে সংগঠিত অর্ধডজন হত্যাকান্ডের কোনো কুলকিনারা হয় নি আজও। এছাড়া তুচ্ছ ঘটনায় প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া হয় প্রতিনিয়ত। ছাত্রাবাস বন্ধের মধ্যেও ছাত্রলীগ কর্মীরা বসবাস করলেও সে তথ্যই অজানা কলেজ অধ্যক্ষের। বিশিষ্টজনরা বলছেন, দীর্ঘদিন ছাত্র সংসদের নির্বাচন না হওয়ায় তাদের নিয়ন্ত্রণ করছে গডফাদাররা। শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশের স্বার্থে এমসি কলেজকে অপরাধমুক্ত করার দাবি সিলেটবাসীর।

You may also like

০৩ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার ২০২০

সকাল ৮:৩০ : অনুষ্ঠান ‘দিন প্রতিদিন’। সকাল ১০:৩০