শ্রীদেবীর চোখের দিকে তাকালে পাগল হয়ে যেতাম: আমির খান

শ্রীদেবীর নায়ক হতে চেয়ে মহেশ ভট্টর দ্বারস্থ হয়েছিলেন আমির খান। রবিবার সাংবাদিকদের কাছে এমন তথ্যই দিলেন খোদ মিস্টার পারফেকশনিস্ট। যশরাজ স্টুডিওয় ‘থাগস্ অফ হিন্দুস্থান’-এর শেষ বেলার প্রচারে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি বলেন, “রোমান হলিডের অনুপ্রেরণায় বলিউডি ছবি বানাতে আমি মহেশ ভট্টের কাছে গিয়েছিলাম। বলেছিলাম, রোমান হলিডের হিন্দি রিমেক বানানো হোক। সেখানে আমি আর শ্রীদেবীর অভিনয় করব। আমার কথা শোনার পর ভট্টজি একটা মোটা বই নিয়ে এসে বললেন, যদি তুমি রোমান হলিডে পছন্দ কর, তা হলে এই বইটা (ইট হ্যাপেনড ওয়ান নাইট) পড়ো। তারপরই আমরা ‘দিল হ্যায় কে মানতা নেহি’ বানালাম।” যদিও এই ফিল্মে মেয়ে পূজা ভট্টকে সুযোগ দিয়েছিলেন মহেশ।

আমিরের বক্তব্য, “শ্রীদেবী যে একদা আমারর ক্রাশ ছিল, সেটা লুকানোর কোনও অবকাশ নেই। শ্রীদেবীর চোখের দিকে তাকালে আমি পাগল হয়ে যেতাম।” নস্ট্যালজিক আমির জানান, “তখন আমি সবে অভিনয় শুরু করেছি। আমরা (আমির ও শ্রীদেবী) একটা ম্যাগাজিনের কভার শুট করছি। এই শুটিং নিয়ে আমি যথেষ্ট উত্তেজিত ছিলাম। যত দূর মনে পড়ছে, আমাদের একটা বিশেষ পোজ দিতে হত। কিন্তু সেই শুটে আমি ভুলেও ওর চোখের দিকে তাকিয়ে পোজ দিইনি। কারণ আমি শ্রীদেবীর চোখের দিকে তাকালেই নির্বাক হয়ে যেতাম। পাছে ও ধরে ফেলে, আমার ওর প্রতি ক্রাশ আছে, তাই চোখের দিকে তাকাতাম না। ও একজন অসামান্য অভিনেতা ছিল।”

আমির শ্রীদেবীর খুব বড় ফ্যান। এমনকি, তাঁর মৃত্যুর পর বিহ্বল হয়ে শ্রীদেবীকে শ্রদ্ধা জানাতে একটা  হৃদয়বিদারক নোটও টুইটারে লিখেছিলেন আমির। আগামী ৮ তারিখ মুক্তি পাচ্ছে যশরাজ প্রযোজিত আমির-অমিতাভ অভিনীত ‘থাগস অফ হিন্দুস্থান’। তার আগে এ দিনের আলোচনায় বেশ খোলামেলা ছিলেন মিস্টার পারফেকশনিস্ট।

You may also like

প্রধানমন্ত্রীত্ব নয়,জনসেবাই আমার মূল লক্ষ্য : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর পদ মূল্যবান নয়, এ পদে থেকে দেশের