রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গণহত্যা দিবস পালন, স্বদেশে ফেরার আকুতি

মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর হত্যাযজ্ঞের জেরে তাদের বাংলাদেশে ধেয়ে আসার একবছর আজ। চরম হতাশাগ্রস্ত রোহিঙ্গারা দিনকে পালন করছে গণহত্যা দিবস হিসেবে। গতবছর এইদিন থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় দশ লাখের মতো রোহিঙ্গা। ঘটনায় বিশ্বব্যাপী তোলপাড়ের এক পর্যায়ে বাংলাদেশে আসেন জাতিসংঘ মহাসচিবসহ বিশ্ব নেতারা মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টি করে প্রত্যাবাসনের কথা বলা হলেও বাস্তব বড় নির্মম।

গেলো বছরে এইদিনে মিয়ানমারের সেনা ও পুলিশ ক্যাম্পে কয়েকটি বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের হামলার অজুহাতে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর ব্যাপক হত্যাযজ্ঞ চালায় দেশটির সেনাবাহিনী ও বৌদ্ধ মিলিশিয়ারা। এতে অন্তত ২৪ হাজার রোহিঙ্গা নিহত হয়। ধর্ষিত হয় ১৮ হাজার রোহিঙ্গা নারী । প্রাণ বাঁচাতে নাফ নদী পেরিয়ে রোহিঙ্গাদের ঢল নামে কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফে।

আশ্রিত এ রোহিঙ্গারা দেশে ফিরে যেতে আশায় বুক বাঁধলেও এখন পর্যন্ত তাদের আশা পূরণের লক্ষণ নেই। এ রোহিঙ্গাদের নিয়ে স্থানীয়ভাবে চলছে নানা সমস্যা। তাদের নিয়ে স্থানিয় জনপ্রতিনিধিদের নানা অভিযোগ। জেলা প্রশাসন বলছে, রোহিঙ্গাদের নিরাপদে মিয়ানমারে ফেরাতে সরকারের প্রচেষ্টা চলছে। এদিকে, মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর চৌকিতে আবার হামলা হতে পারে- এমন গুজবে বাংলাদেশ সীমান্তে সেনা সংখ্যা বাড়িয়েছে দেশটি।

You may also like

রোনালদোর লাল কার্ডের দিনেও জিতল জুভেন্টাস

জুভেন্টাসের হয়ে অভিষেকেই লাল কার্ড দেখলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।