শরীয়তপুরের নড়িয়া- সুরেশ্বর পয়েন্টে বাড়ছে পদ্মার পানি

শরীয়তপুরের নড়িয়া- সুরেশ্বর পয়েন্টে বাড়ছে পদ্মার পানি। উজান থেকে নেমে আসা পানিতে জাজিরা, নড়িয়া ও ভেদরগঞ্জ উপজেলা পদ্মার তীরবর্তি গ্রাম গুলো প্লাবিত হয়ে রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে স্কুলসহ নানা স্থাপনা। তবে আগাম প্রস্তুতির কথা জানিয়েছেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম। আষাঢ়ের শুরুতেই পানি বাড়ার ফলে ভয়ংকর রূপ নিয়েছে আগ্রাসী পদ্মা। তলিয়ে গেছে নড়িয়া পৌরসভা কয়েকটি গ্রামসহ নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলার পদ্মা পাড়ের রাস্তাঘাট, ফসলী জমি ও বসত বাড়ি। বন্ধ হয়ে গেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ভাঙনের ঝুঁকিতে পড়েছে জাজিরা উপজেলার কাজিয়ারচর ছমির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ও কাজিয়ারচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫টি পাকা ও আধাপাকা ভবন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে বাঁধের কাজ শুরু হলেও শেষ হতে সময় লাগবে আরও ২ বছর। তাই বড় বন্যা হলে আবারো ভাঙন আতংকে স্থানীয়রা।  সিইজিআইএস এর প্রতিবেদনের আলোকে ঝুকিপূর্ণ এলাকায় চিহ্নত করে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং এর কাজ শুরু করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড ও পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়। বন্যার ঝুঁকি মোকাবেলায় সবধরণের প্রস্তুতির কথা জানালের পানি সম্পদ উপমন্ত্রী । ১হাজার ৭৭ কোটি টাকা ব্যায়ে পদ্মার তীর রক্ষা প্রকল্পের কাজ করছে বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর খুলনা শিপইয়ার্ড। এর বাইরেও ঝুকিতে থাকা ৮টি পয়েন্ট চিহ্নিত করে ভাঙন রোধে জরুরী জিও বস্তা ডাম্পিং এর কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

You may also like

ময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙনে ভিটেমাটি ছাড়া শতাধিক পরিবার

ভয়াবহ রূপ নিয়েছে ময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙন। প্রতিদিনই নদী