তীব্র শীতে বিপর্যস্ত উত্তরের জনজীবন

শীতের তীব্রতা বেড়েই চলেছে উত্তরাঞ্চলে। দূর্ভোগে পড়েছেন শীতার্ত দু:স্থ অসহায় ও নিম্ন আয়ের মানুষ। বয়স্ক ও শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে শীতজনিত নানা রোগে। কুড়িগ্রামে মৃদু শৈত্য প্রবাহ বইছে। রাজশাহীতে তাপমাত্রা ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চুয়াডাঙ্গায় ভোর ৬টায় সর্বনিন্ম তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শীত ও কুয়াশার সাথে হিমেল বাতাস যুক্ত হওয়ায় লালমনিরহাটে দুর্ভোগ বেড়েছে অসহায় ও নিম্ন আয়ের মানুষের। ঠান্ডার প্রকোপ উপেক্ষা করে বাইরে বেড়ানোই তাদের জন্য কষ্টকর হয়ে দাড়িয়েছে। জীবিকার প্রয়োজনে খেটে খাওয়া দিনমজুর কাজের সন্ধানে গেলেও অনেকেই বাড়িতে ফিরে আসছেন খালি হাতে। হাসপাতালে বাড়ছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা। হঠাৎ করে শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছে কুড়িগ্রামের নিম্ন আয়ের মানুষজন। জেলায় বইছে মৃদু শৈত্য প্রবাহ। কুয়াশার চাদরে ঢেকে আছে গোটা জনপদ। ঠান্ডার কারণে শিশু,বৃদ্ধ ও নিম্ন আয়ের শ্রমজীবি মানুষসহ গবাদী পশুও দুর্ভোগে পড়েছে।

পঞ্চগড়ে কয়েক দিন ধরে শুরু হয়েছে তীব্র শীত আর কুয়াশা। অনেকটা বিপর্যস্ত ছিন্নমুল ও খেটে খাওয়া মানুষের জীবন। যানবাহনগুলো হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে। হাড়কাঁপানো শীতে কাঁপছে চুয়াডাঙ্গার মানুষ। গত দুইদিন থেকে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত রয়েছে এ জেলায়। দিন দিন তাপমাত্রা হ্রাস পাওয়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এখানকার জনজীবন।  পশ্চিমা কনকনে হিমেল বাতাস ও প্রচণ্ড শীতে কাঁপছে উত্তরের জেলা গাইবান্ধা। শীতের কারণে জেলার চরাঞ্চলগুলোর মানুষ ও গবাদি পশুর অবস্থা ভয়াবহ। কুয়াশার কারণে সরিষা ক্ষেতের ফুল ঝরে পড়ছে এবং বীজতলায় বোরো ধানের চারা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ। এছাড়া. জেলার তিস্তা ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা নদীপথে নৌ চলাচল বিঘ্নিত হওয়ায় চরাঞ্চলের মানুষ বিপাকে পড়ছেন। জেলার গ্রামীণ জনপদ এবং যমুনা, ব্রহ্মপুত্র ও নদী তীরবর্তী এলাকার দু:স্থ পরিবারগুলো গরম কাপড়ের অভাবে চরম দুর্ভোগে পড়েছে। বাংলাভিশন, নিউজডেস্ক

You may also like

২৫ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার ২০২০

সকাল ৮:৩০ : দিন প্রতিদিন বেলা ১১:০৫ :