যমুনা ও তিস্তাসহ বিভিন্ন নদ নদীর পানি বিপদসীমার উপরে

বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে কয়েকটি নদ- নদীর পানি। তলিয়েছে নদীতীরবর্তী নিম্নাঞ্চল। ঝুঁকির মুখে কয়েকটি এলাকার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ। টানা বর্ষণ আর উজানের ঢলে কুড়িগ্রামে বন্যা দেখা দিয়েছে। ধরলা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে। ধরলার পানি কুড়িগ্রাম ব্রিজ পয়েন্টে বিপদসীমার ৬২ সেন্টিমিটার ও ব্রহ্মপুত্রের পানি চিলমারী পয়েন্টে বিপদসীমার ৬৪সেন্টিমিটার ও নুন খাওয়া পয়েন্টে ৫০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানিবন্দী ২২ ইউনিয়নের প্রায় এক লাখ মানুষ।

জামালপুরের বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে যমুনার পানি বিপদ সীমার ৪৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে যমুনার পানি ৩৫ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। এদিকে সিরাজগঞ্জে যমুনার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সিরাজগঞ্জ সদর,কাজিপুর বেলকুচি, চৌহালী ও শাহজাদপুর উপজেলার চরাঞ্চলে পানি প্রবেশ করছে। পাঁচটি উপজেলার ৩০ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। তলিয়ে গেছে এক হাজার ৫০৯ হেক্টর জমির ফসল । তিস্তা ও ধরলার পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় অপরিবর্তিত রয়েছে লালমনিরহাটের বন্যা পরিস্থিতি।

You may also like

ডা. সাবরিনার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

করোনা পরীক্ষায় জালিয়াতির মামলায় জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা.