বন্যা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি

উত্তরাঞ্চলে বিভিন্ন নদনদীর পানি বেড়ে কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, সিরাজগঞ্জ ও নাটোরসহ বিভিন্ন জায়গায় বন্যা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি হয়েছে। এসব এলাকায় লাখ লাখ মানুষ পানিবন্দি। দেখা দিয়েছে খাবার ও বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট। এদিকে, মধ্যাঞ্চল জামালপুরে যমুনার পানি দ্রুত বাড়তে থাকায় চরম অবনতি হয়েছে বন্যা পরিস্থিতির। কুড়িগ্রামে ধরলা নদীর পানি কিছুটা কমলেও দ্রুত বাড়ছে ব্রহ্মপূত্র নদের পানি। দ্বিতীয় দফা বন্যায় আগের তুলনায় বেশি পানি বাড়ায় প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। জেলার ৬০ ইউনিয়নের ৫২৫টি গ্রামের অন্তত তিন লাখ মানুষ পানিবন্দি।

লালমনিরহাটের প্রধান দুই নদী তিস্তা ও ধরলার পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে বয়ে গেলেও দুর্গত এলাকাগুলো এখনো পানিতে তলিয়ে। বন্যাদুর্গতরা রয়েছেন খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সঙ্কটে। অন্যদিকে, জামালপুরে যমুনার পানি বাহাদুরাবাদঘাট পয়েন্টে বিপদসীমার ১২৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। জেলার ৫২ ইউনিয়নের চার লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি। দুই দফা বন্যায় নাকাল হয়ে পড়েছে বন্যা কবলিত এলাকার মানুষ। এসব মানুষের মাঝে দেখা দিয়েছে খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট। রাস্তা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ভেঙ্গে পড়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা। দেওয়ানগঞ্জ পৌর শহর তলিয়ে যাওয়া সরকারি দপ্তরসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে।

এদিকে সিরাজগঞ্জে অস্বাভাবিকভাবে যমুনার পানি বাড়ছে। প্রতিদিন চরাঞ্চলের নতুন নতুন এলাকা পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। প্রথম ও দ্বিতীয় দফা বন্যায় টানা বিশদিনের বেশী সময় ধরে কাজিপুর, সিরাজগঞ্জ সদর, বেলকুচি, চৌহালী ও শাহজাদপুর উপজেলার ১ লক্ষ ৭৩ হাজার বানভাসির ভোগান্তি চরমে। পানি বাড়ার সাথে সাথে তীব্র নদী ভাঙনে দিশেহারা যমুনাপাড়ের মানুষেরা। আরো তিন দিন যমুনায় পর্যন্ত পানিবৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। নাটোরে টানা বৃষ্টি ও উজানের ঢলে আত্রাই নদীর পানি বেড়ে নিম্নাঞ্চল তলিয়ে গেছে। বন্যায় পানিবন্দি মানুষগুলো খেয়ে না খেয়ে দিন পার করছে। এদিকে, মানিকগঞ্জে যমুনা নদীর আরিচা পয়েন্টে বিপদ সীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। পদ্মা-যমুনা ছাড়াও জেলার শাখা নদীগুলোর পানি বাড়ায় প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। বন্যায় তলিয়ে যাচ্ছে ফসলি জমি। অন্যদিকে বগুড়ায় যমুনার পানি কমলেও ফসলের ক্ষতিতে হতাশ হয়ে পড়েছেন সারিয়াকান্দি উপজেলার যমুনার চরের ৬টি ইউনিয়নের অর্ধলক্ষ কৃষক। সরকারি সাহায্য কম বলে অভিযোগ ক্ষতিগ্রস্তদের।

You may also like

স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থী সিফাতের জামিন

পুলিশের মামলায় জামিন পেয়েছেন স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থী সাহেদুল ইসলাম