রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিশ্চিতে দায়িত্ব নিতে হবে জাতিসংঘকেই

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিশ্চিতে জাতিসংঘকেই দায়িত্ব নিতে হবে- বলছেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষকরা। অহেতুক কালক্ষেপণ বন্ধে মিয়ানমারের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপেরও পরামর্শ তাদের। এদিকে, রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে ভারত ও চীনের আরো উদ্যোগী ভূমিকা চান নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা। নাফ নদ পেরিয়ে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আছড়ে পড়ার দু’বছর পূর্ণ হলো রবিবার। এই দুই বছরে দুই দফায় প্রত্যাবাসনের চেষ্টা পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। এতোদিন নিরাপত্তার কথা বললেও এখন মিয়ানমারে ফিরে যেতে নাগরিকত্বসহ পাঁচ শর্ত দিয়েছে রোহিঙ্গারা।আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষকরা বলছেন, বাংলাদেশের আরো কঠোর হওয়ার বিকল্প নেই।

সুদানের দারফুরের প্রসঙ্গ টেনে এই ইস্যুতেও জাতিসংঘের জোরালো ভূমিকা দরকার বলে মত তাদের। এদিকে, নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, প্রথমে অস্বীকার করলেও এখন মিয়ানমার অন্তত রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার কথা বলছে। মনোভাবের পরিবর্তন এসেছে শক্তিশালী দুই প্রতিবেশী দেশেরও। তাই এখন কূটনৈতিক প্রচেষ্টা আরো জোরদারের পরামর্শ তাদের। প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার প্রতিটি ধাপে রোহিঙ্গাদের সম্পৃক্ত করারও পরামর্শ বিশিষ্টজনদের।

 

You may also like

১৯ সেপ্টেম্বর, বৃহস্পতিবার ২০১৯

বেলা ১২:০৫ : বাংলা সিনেমা বিকেল ৫:০০ :