রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির কর্মসূচি চালাচ্ছে মিয়ানমার

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র মজুদের অভিযোগ তুলেছেন মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের শীর্ষস্থানীয় এক কর্মকর্তা। তাঁর অভিযোগ, আন্তর্জাতিক বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে ১৯৮০ সাল থেকে রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির কর্মসূচি এখনো চালাচ্ছে মিয়ানমার।

সোমবার নেদারল্যান্ডসের হেগে রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থা-ওপিসিডাব্লিউ’র বার্ষিক সভায় এই তথ্য জানান মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি থমাস ডিন্যানো। তাঁর দাবি, ১৯৮০ সালে রাসায়নিক অস্ত্র তৈরি কর্মসূচির আওতায় মাস্টার্ড গ্যাস তৈরি করতো মিয়ানমার। এখনো সেসব স্থাপনায় রাসায়নিক অস্ত্র মজুদ রাখার অভিযোগ তোলা হয়েছে। যা রাসায়নিক অস্ত্র বিলুপ্তিকরণ সনদের স্পষ্ট লঙ্ঘন। ২০১৫ সালে ওই সনদে সই করে মিয়ানমার। আন্তর্জাতিকভাবে নিষিদ্ধ এসব অস্ত্র ধ্বংসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে প্রস্তাব দেয়া হলেও সাড়া মেলেনি।

২০১৪ সালে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে এধরণের অভিযোগ তুলে ১০ বছরের কারাদণ্ডের মুখে পড়েন পাঁচ সাংবাদিক। ২০১২ সালে মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে এক খনিতে শ্রমিকদের ওপর ফসফরাস গ্যাস ব্যবহার করা হয়। এছাড়া, কচিন বিদ্রোহ দমনেও রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে।

You may also like

ভারতের এনআরসি বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের জন্য হুমকি: ফখরুল

স্বাধীনতার ৫০ বছরের দ্বারপ্রান্তে এসে দেশ এখন গণতন্ত্রহীন